বিদ্রোহীদের প্রতি সভাপতির কঠোর হুশিয়ারি নওগাঁয় নৌকার প্রার্থীদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করার অভিযোগ

আপডেট: ডিসেম্বর ৬, ২০২১, ৯:১৯ অপরাহ্ণ


নওগাঁ প্রতিনিধি:


নওগাঁর পত্নীতলা ইউনিয়নে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম বিশৃঙ্খলা তৈরির চেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। দলের মনোনীত প্রার্থীর বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছেন। এতে একদিকে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ হচ্ছে, অপরদিকে কর্মি সমর্থকদের মাঝে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা কর্মিরা জানান, পঞ্চম ধাপে পত্নীতলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর দল থেকে নৌকা চান মোট সাত জন। সম্ভাব্য প্রার্থীদের নাম প্রস্তাব করে রেজুলেশনসহ ইউনিয়ন কমিটি নিয়ম অনুযায়ী উপজেলা কমিটির কাছে পাঠায়। একই ভাবে উপজেলা কমিটি যাচাই করে জেলা কমিটির কাছে এবং জেলা কমিটি কেন্দ্রে পাঠায়।
নৌকা প্রত্যাশীদের মধ্য থেকে সভানেত্রী পত্নীতলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি মোশারফ হোসেন চৌধুরীকে মনোনয়ন দেন। এই খবর ছড়িয়ে পড়লে নেতা কর্মি ও আওয়ামী লীগের সমর্থকসহ সাধারন মানুষ সন্তোষ প্রকাশ করেন।

এদিকে সিনিয়র নেতাদের পরামর্শে দলের নেতা কর্মি ও কর্মি সমর্থকদের নিয়ে মোশারফ চৌধুরী ভোটের সার্বিক প্রস্তুতি নিচ্ছেন। মনোনয়ন দেয়ার কয়েক দিন পর হঠাৎই বিদ্রোহী হয়ে উঠেছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম। ইতোমধ্যেই তিনি গোপনে ও সরাসরি দলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধাচারন করছেন। দলীয় প্রার্থী মোশারফ হোসেনের বিরুদ্ধে ‘২০১৬ সালের ভোটে বিদ্রোহী প্রার্থীর মিথ্যা’ তথ্য ছড়াচ্ছেন কাশেম। মনোনয়ন না পাওয়ায় কর্মিদেরকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করছেন এবং নৌকার বিরুদ্ধে কাজ করার অনুপ্রেরনা দিচ্ছেন।

আবুল কাশেম বলেন, দল মনোনয়ন দিতে ভুল করেছে। ফলে পুনরায় সিদ্ধান্তের জন্য তিনি আপিল করেছেন। মোশারফ হোসেন চৌধুরী কিভাবে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছিলেন জানতে চাইলে আবুল কাশেম এই প্রশ্নের কোন সদুত্তর দিতে পারেননি। দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও বিশৃঙ্খলা তৈরির অভিযোগ তিনি অস্বীকার করেছেন।

এ বিষয়ে নৌকার মাঝি মোশারফ হোসেন চৌধুরী বলেন, ‘আমরা পারিবারিক ঐতিহ্যগত ভাবেই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। এলাকার মানুষ ভালবাসেন, আমার জনপ্রিয়তা আছে। কখনও দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গ করিনি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কন্যা সভানেত্রী শেখ হাসিনা সার্বিক বিবেচনা করে আমাকে মনোনয়ন দিয়েছেন। আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ ও প্রপাগান্ডা ছড়িয়ে কেউ ফায়দা লুটতে পারবে না। জয় নিশ্চিত।’

এ বিষয়ে পত্নীতলা উপজেলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালেক চৌধুরী বলেন, দলের সভানেত্রী মনোনয়ন দিয়েছেন। বিশৃঙ্খলা তৈরির চেষ্টা করলে কেউ ছাড় পাবে না। পত্নীতলায় মোশারফ চৌধুরী মনোনয়ন পেয়েছেন। দলের সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে সবাইকে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।