বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বনপাড়া পৌর মেয়র হচ্ছেন কেএম জাকির হোসেন!

আপডেট: ডিসেম্বর ৪, ২০২২, ১০:৪৩ অপরাহ্ণ

নাটোর প্রতিনিধি :


আগামী ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়া পৌরসভা নির্বাচন। এ পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে মনোনয়ন উত্তোলন করেন, আওয়ামী-লীগ সমর্থিত বর্তমান মেয়র কেএম জাকির হোসেন এবং তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী জাকির হোসেন সরকার। তবে মনোয়ন যাচাই বাছাইয়ে কেএম জাকির হোসেনের মনোনয়ন পত্র বৈধ এবং অপর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী জাকির হোসেন সরকারের ইসি কর্তৃক দ্বৈবচয়নকৃত প্রস্তাবকারী ও সমর্থনকারীর মধ্যে একজনের জাতীয় পরিচয় পত্রের নম্বর ভুল থাকায় তার মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করেন জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটানির্ং অফিসার মো. আনোয়ার হোসেন।

ফলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তৃতীয় বারের মত পৌর মেয়র হতে যাচ্ছেন আওয়ামীলীগ নেতা কেএম জাকির হোসেন। তবে মনোনয়নপত্র বাতিলের বিষয়ে আপিল করবেন বলে জানিয়েছেন জাকির হোসেন সরকার।

সহকারি রিটার্নিং অফিসার ও বড়াইগ্রাম উপজেলা নির্বাচন অফিসার হাসিব বিন শাহাব জানান, মেয়রপদে ২ জন প্রার্থী তাদের মনোয়নপত্র জমা দেন। যাচাই বাছাইয়ে মো. জাকির হোসেন সরকারের প্রস্তাবকারী ও সমর্থনকারী ১০০জন ভোটারের মধ্যে ইসি কর্তৃক দ্বৈবচয়নকৃত ৫ জনের মধ্যে জাতীয় পরিচয়পত্র যাচাই বাছাই করে ১ জনের নম্বরে অমিল পাওয়া যায়। এরফলে বিধি মোতাবেক তার জাকির হোসেন সরকারের মনোয়নপত্র বাতিল করা হয়।

অন্যদিকে পৌরসভার সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ২ নং ওয়ার্ডে বর্তমান কাউন্সিলর শরিফুন্নেসা শিরিনের কোন প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে চলেছেন।

মো. জাকির হোসেন সরকার জানান, আমি আপিল করবো। আমাকে সমর্থনকারী একজনের জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর লিখতে গিয়ে ৯ এর স্থলে ভুলবশত ১ লিখা হয়েছিল। আশা করি আপিলে বৈধতা পাবে।

তবে বিজয়ী হওয়ার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করে বর্তমান মেয়র কেএম জাকির হোসেন জানান, এমনিতেই আমি বিজয়ী হতাম। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর জনসমর্থন নেই। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা তাকে দাঁড় করিয়েছিলেন।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটারর্নিং অফিসার মো. আনোয়ার হোসেন জানান, যে কেউ আপিল করতে পারে। সিদ্ধান্ত কি হবে সেটা আপিলকারী কর্তৃপক্ষের বিষয়। আমরা বিধি মোতাবেক কাজ করছি।

পৌর নির্বাচনে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১২টি ওয়ার্ডে ৩৩ জন এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৩টি আসনে ৭জন প্রতিদ্বন্দীতা করবেন।

এদিকে, ২৯ ডিসেম্বর বড়াইগ্রাম উপজেলার জোয়াড়ী ও মাঝগাঁ ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে জোয়াড়ী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৫ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৪৭ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৯ জন এবং মাঝগাঁও ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৭ জন, সাধারণ সদস্য পদে ৪৪ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্যপদে ১০জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ