বিবিএস: ২০৪১ সালে বাংলাদেশে পুরুষের চেয়ে নারীর সংখ্যা বেশি হবে

আপডেট: জুন ২১, ২০২২, ৩:০২ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক :


আগামী ৫০ বছরে বাংলাদেশের জনসংখ্যা কত হতে পারে, তা নিয়ে পূর্বাভাস দিয়ে প্রতিবেদন তৈরি করেছে সরকারি সংস্থা বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস)। তাতে বলা হয়েছে, আর মাত্র ১৯ বছর পর অর্থাৎ ২০৪১ দেশে নারীর সংখ্যা পুরুষদের ছাড়িয়ে যাবে। তবে এর ২০ বছর পর আবারও দেশে নারীর চেয়ে পুরুষ বেশি থাকবে।

গত সপ্তাহে বিবিএসের “ওমেন অ্যান্ড মেন ইন বাংলাদেশ: ফ্যাক্টস অ্যান্ড ফিগারস ২০২২” নামক প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। ২০১১ সালের আদমশুমারির ওপর ভিত্তি করে ওই প্রতিবেদনে পরবর্তী ৫০ বছরে বাংলাদেশের জনসংখ্যার একটি সম্ভাব্য চিত্র তুলে ধরা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০৪১ সাল নাগাদ বাংলাদেশের জনসংখ্যা হবে ২০ কোটি ৫৬ লাখ ৩৫ হাজার। তখন প্রথমবারের মতো দেশে পুরুষের চেয়ে নারীর সংখ্যা থাকবে বেশি। ২০৪১ সালে দেশে নারীর সংখ্যা দাঁড়াবে ১০ কোটি ৩১ লাখ ১৭ হাজার। অন্যদিকে, পুরুষের সংখ্যা থাকবে ১০ কোটি ২৫ লাখ ১৮ হাজার।

প্রতিবেদনে শুধু ২০৪১ সাল না, ২০৬১ সালের একটি সম্ভাব্য চিত্রও তুলে ধরা হয়েছে। তখন অবশ্য আবার দেশে নারীর চেয়ে পুরুষের সংখ্যা বাড়বে।
বিবিএসের ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০৬১ সালে দেশের জনসংখ্যা দাঁড়াবে ২২ কোটি ৩৩ লাখ ৯৩ হাজারে। তখন সারাদেশে পুরুষ থাকবে ১১ কোটি ১৮ লাখ ৬৪ হাজার। অন্যদিকে, নারীর সংখ্যা দাঁড়াবে ১১ কোটি ১৫ লাখ ২৯ হাজারে।

এ বিষয়ে বিবিএসের জনসংখ্যা ও স্বাস্থ্য শাখার পরিচালক মাসুদ আলম সংবাদমাধ্যম প্রথম আলোকে বলেন, “ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব রিসার্চ অ্যান্ড ট্রেনিংয়ের সহায়তায় প্রতিবেদনটি তৈরি করা হয়েছে। আমরা বিভিন্ন ধরনের জনসংখ্যাভিত্তিক মডেল বিবেচনায় এনে জনসংখ্যার পূর্বাভাস দিয়েছি। এই প্রতিবেদনে শ্রমবাজার, কর্মসংস্থান, শিক্ষা, স্বাস্থ্য—এসব খাতের বিশ্লেষণেও দেওয়া হয়েছে। এখন জনসংখ্যাতাত্ত্বিক সুবিধার (ডেমোগ্রাফিক ডিভিডেন্ড) সময় চলছে।”