বিমান হামলায় আইএসের মুখপত্র ‘আমাকের প্রতিষ্ঠাতা নিহত’

আপডেট: জুন ২, ২০১৭, ১২:৪৯ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


সিরিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ দেইর আল জোরে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন জোট বাহিনীর বিমান হামলায় ইসলামিক স্টেটের মুখপত্র আমাকের প্রতিষ্ঠাতা নিহত হয়েছে।
বুধবার এক ফেইসবুক পোস্টে তার ভাই এ কথা জানিয়েছে।
তবে আমাকের প্রতিষ্ঠাতা রাইয়ান মেশাল নিহত হয়েছে কি না তা স্বাধীনভাবে যাচাই করা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। তাৎক্ষণিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন জোট বাহিনীর পক্ষ থেকেও এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করা হয়নি।
ওই পোস্টে জানানো হয়, বিমান হামলায় আল মায়াদিন শহরের নিজ বাড়িতে মেশাল ও তার কন্যা নিহত হয়েছে। সিরিয়ার সরকার বিরোধী আন্দোলনকারীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মেশালের নিহত হওয়ার খবরটি শেয়ার করেছে।
প্রকাশিত ওই ফেইসবুক পোস্টে তার ভাই বলেন, “আমি হৃষ্টচিত্তে ঘোষণা করছি, জোট বাহিনীর বিমান হামলায় রাইয়ান মেশাল নামে পরিচিত আমার বড় ভাই বরা কাদেক শহীদ হয়েছেন।”
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আমাকের চ্যানেলগুলো থেকে প্রায়ই বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় চালানো হামলার দায় স্বীকার করে আইএস।
টুইটারে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক এসআইটিই মনিটরিং সার্ভিসের পরিচালক রিটা কাৎজ জানিয়েছেন, দেইর আল জোরে জোট বাহিনীর বিমান হামলায় মেশাল নিহত হয়েছে বলে জানা গেছে।
২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে আমাক ‘নিজেকে আইএসআইএসের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা’ হিসেবে উপস্থাপন করে বলে জানিয়েছেন কাৎজ। ওই সময় থেকে বিশ্বব্যাপী অন্তত দুই ডজনের মতো হামলার দায় স্বীকার করে আইএসের দেওয়া বিবৃতি আমাক প্রকাশ করে বলেও জানিয়েছেন তিনি।
গত সপ্তাহে আল মায়াদিনে চালানো জোট বিমান হামলায় আইএস জঙ্গিদের পরিবারের সদস্য নারী ও শিশুসহ ১০০ জনেরও বেশি মানুষ নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক পর্যবেক্ষক গোষ্ঠী সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস।
আইএসের জঙ্গিরা সিরিয়ার পূর্বাঞ্চলীয় বিশাল মরুভূমি এবং ইরাকি সীমান্ত সংলগ্ন দেইর আল জোর প্রদেশের অধিকাংশ এলাকা নিয়ন্ত্রণ করছে, তবে গত বছর থেকে তারা সিরিয়া ও ইরাকে তাদের নিয়ন্ত্রিত অধিকাংশ এলাকা হারিয়েছে।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ