বিশ্ববাজারে ‘ট্রাম্পভীতি’

আপডেট: নভেম্বর ৯, ২০১৬, ১২:২০ পূর্বাহ্ণ

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের কয়েকদিন বাকি থাকতে টানা দুদিন বৈশ্বিক পুঁজিবাজারে শেয়ার ও ডলারের দরপতন হয়েছে।
বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, মূল দুই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি নির্বাচনী লড়াইয়ের ইঙ্গিত পেয়ে ঝুঁকি এড়াতে নিরাপদ বিনিয়োগের দিকে ছুটছেন বিনিয়োগকারীরা।
৮ নভেম্বর নির্বাচনের পরিণতি কোন দিকে গড়াবে সেই অনিশ্চয়তায় যুক্তরাষ্ট্রের ট্রেজারি বন্ডের দর একসপ্তাহের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে ঠেকেছে। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের অপরিশোধিত তেলের রেকর্ড পরিমাণ মজুদ হওয়ায় তেলেরও ব্যাপক দরপতন হয়েছে।
ট্রাম্প প্রশাসনের চেয়ে হিলারি প্রেসিডেন্ট হলে যুক্তরাষ্ট্রের পুঁজিবাজার ভাল চলবে বলে গত মাসে রয়টার্সের পুঁজিবাজার জরিপে পূর্বাভাস দিয়েছিলেন সংখ্যাগরিষ্ঠ বিশ্লেষকরা।
রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, যেই বিনিয়োগকারীরা ডেমোক্রেট পার্টির প্রার্থী হিলারি ক্লিনটনের জয় নিয়ে অনেক আগে বাজি ধরেছেন তারা নির্বাচনী দৌড়ে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের এগিয়ে যাওয়ার আলামত দেখে নতুন করে ভাবতে শুরু করেছেন। এর ফলে বিশ্বজুড়ে প্রধান পুঁজিবাজারগুলোতে চলতে থাকা দরপতন আরও ঘনীভূত হয়েছে।
এশীয় ও ইউরোপীয় পুজিবাজারগুলোতে দরপতনের পর দুর্বল হয়ে পড়া ওয়াল স্ট্রিটের প্রভাবে ‘অল ওয়ার্ল্ড’ নামে পরিচিত এমএসসিআইয়ের ৪৭ দেশের সাধারণ সূচক এমআইডব্লিউ ০০০০০পিইউএস বুধবার শূন্য দশমিক ৭৪ শতাংশ পড়ে চার মাসের সর্বনিম্ন দরের কাছাকাছি নেমেছে।
সোমবার প্রকাশিত রয়টার্স/ইপসস মতামত জরিপে ট্রাম্পের চেয়ে ক্লিনটন ৫ শতাংশীয় পয়েন্ট এগিয়ে থাকলেও অন্য জরিপগুলোতে দেখা যায়, ট্রাম্পকে এক থেকে দুই পয়েন্ট এগিয়ে রেখেছে।
বস্টনে ম্যানুলাইফ অ্যাসেট ম্যানেজমেন্টের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা নেইল মাসা বলেন, “আজকের মূল চালিকাশক্তি নির্বাচন ঘিরে উদ্বেগ। মনে হচ্ছিল, ক্লিনটনই জিততে যাচ্ছেন এবং এখন যে ট্রাম্প গতি পাচ্ছে তাতে লোকজন উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ছে।”
যুক্তরাষ্ট্রের পুঁজিবাজারে দরপতনের পেছনে ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক সুদের হার অপরিবর্তিত রাখারও কিছুটা অবদান রয়েছে। ডিসেম্বরে সুদের হার বাড়ানোর হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।
তবে ফেডারেল রিজার্ভের এই সিদ্ধান্তকে ‘অস্বাভাবিক’ মনে করছেন না অ্যালান ল্যাঞ্জ, যিনি ওহাইয়োর টলেডোতে একটি বিনিয়োগ পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের প্রধান হিসেবে কাজ করছেন।
“এই বাজার এখন অনেকটাই নির্বাচনে কেন্দ্রীভূত,” বলেন অ্যালান বি ল্যাঞ্জ অ্যান্ড অ্যাসিয়েটসের প্রেসিডেন্ট।
ছয়টি প্রধান মুদ্রার বিপরীতে ডলারের মূল্যসূচক .ডিএক্সওয়াই বুধবার শূন্য দশমিক ৩৭ পয়েন্ট কমে ৯৭ দশমিক ৩৩৮ পয়েন্টে নেমেছে। পতনের ধারায় এর আগে এই সূচক তিন সপ্তাহের বেশি সময়ের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে নেমে ৯৭.১৭৮ পয়েন্টে ঠেকেছিল।
ট্রাম্পের বিজয় মেক্সিকোর অর্থনীতিতে আঘাত হানতে পারে এই ভয়ে ডলারের বিপরীতে মেক্সিকান পেসো এক মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন পর্যায়ে নেমেছে। বুধবার ডলারপ্রতি পেসোর মূল্য দাড়িয়েছে ১৯.৪৬৬৭ পেসো।- বিডিনিউজ