বিশ্ববাজারে সয়াবিনের দাম ২ বছরের মধ্যে নিম্নমুখি

আপডেট: অক্টোবর ১১, ২০২৩, ১২:৪৬ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক:


বিশ্ববাজারে সয়াবিনের দাম নিম্নমুখি। মঙ্গলবার শিকাগো বোর্ড অব ট্রেডে (সিবিওটি) আরেক দফা কমেছে সয়াবিনের দাম। ফলে গত ২ বছরের মধ্যে সয়াবিনের দাম সবচেয়ে কমেছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

অন্যান্য ভোজ্যতেলের দামও বিশ্ববাজারে এখন নিম্নমুখি। মালয়েশিয়ার পাম অয়েলের মূল্য তিন মাসের মধ্যে সর্বনিম্নে পৌঁছেছে। একই সঙ্গে সূর্যমুখি তেলের দামও কমেছে।

শিকাগো বোর্ড অব ট্রেডে (সিবিওটি) সবচেয়ে সক্রিয় সয়াবিনের সরবরাহ মূল্য হ্রাস পেয়েছে শূন্য দশমিক ৩ শতাংশ। প্রতি বুশেলের দাম নির্ধারণ হয়েছে ১২ ডলার ৬১ সেন্ট। কর্মদিবসের শুরুতে যা ছিল ১২ ডলার ৫৪ সেন্ট। ২০২১ সালের ডিসেম্বর মাসের পর এই দাম সর্বনিম্ন।

বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ উৎপাদক যুক্তরাষ্ট্রে সয়াবিনের উৎপাদন বেড়েছে। এছাড়া বৃহৎ সরবরাহকারী ব্রাজিলেও বাম্পার ফলন হয়েছে। ফলে দুই দেশ রপ্তানি প্রতিযোগিতার মধ্যে পড়েছে। এছাড়া মার্কিন মুদ্রা ডলারের মান বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে সয়াবিনের বাজার চাপে পড়েছে।

ব্রাজিলিয়ান কৃষি পণ্য সংস্থা কোনাব জানিয়েছে, দেশটিতে ২০২৩-২০২৪ মৌসুমে সয়াবিন উৎপাদনের নতুন রেকর্ডের পূর্বাভাস দেয়া হয়।
এছাড়া আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দামও কমেছে। ওপেক প্লাসের বৈঠকে সামনে রেখে এমন চিত্র দেখা গেছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে সুদের উচ্চ হারের কারণে তেলের চাহিদা কমতে পারে। একদিকে সুদের উচ্চ হার অন্যদিকে অন্যান্য মুদ্রার বিপরীতে ডলারের দাম বেড়েছে উল্লেখযোগ্য হারে।

এতেই চাহিদা কমছে তেলের। কারণ দুর্বল মুদ্রা দিয়ে তেল কেনাটা ব্যয়বহুল।

তথ্যসূত্র: জাগোনিউজ