বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে চাইলে সাঁতার জানতে হবে!

আপডেট: এপ্রিল ৪, ২০১৭, ১২:২১ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



চিনের অন্যতম প্রধান একটি বিশ্ববিদ্যালয় শিংহুয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্য আবেদনকারী ছাত্রছাত্রীদের বলা হয়েছে, স্নাতক ডিগ্রি পেতে হলে তাদেরকে অবশ্যই আগে সাঁতার শিখতে হবে। শিংহুয়া বিশ্ববিদ্যালয়কে বলা হয় ‘প্রাচ্যের হার্ভার্ড’।
১৯১১ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়া এ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রদের মধ্যে আছেন চিনের বর্তমান প্রেসিডেন্ট শি জিন পিং ও সাবেক প্রেসিডেন্ট হো জিন তাও! র‌্যাংকিং এর দিক দিয়ে বিশ্বে এ বিশ্ববিদ্যালয়টির অবস্থান ৭৩ এবং এশিয়াতে চতুর্থ। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা ৪১ হাজার। দেশটির দ্বিতীয় সেরা এই বিশ্ববিদ্যালয়টির তাদের গ্রাজুয়েট ডিগ্রির সাথে সাঁতার শেখাকে এভাবে যুক্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকে বলেছেন, যে দেশ এখন খরা মোকাবিলা করছে – সেখানে এ পদক্ষেপের যুক্তি কি? একজনের প্রশ্ন ছিল, চিনে যে এলাকায় নদী বা সাগর নেই সেখানকার ছাত্রদের তাহলে কি হবে?
কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ে বলছে, সাঁতার একটি জীবনরক্ষাকারী দক্ষতা, এটা শারীরিক ফিটনেস বাড়ায়। তা ছাড়া দেশের সেরা মাথাওয়ালা যারা – তাদেরকে সুইমিং পুলেও নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণ করতে হবে। মজার ব্যাপার হচ্ছে, এ বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিগ্রির জন্য সাঁতারকে একটি পূর্বশর্ত করা হয়েছিল অনেক আগে – ১৯১৯ সালে। কিন্তু পরে এটা আবার বাদ দেয়া হয়েছিল – যার একটা কারণ ছিল বেইজিং-এ সুইমিং পুলের অভাব। কিন্তু সোমবার প্রকাশিত নতুন নিয়মে বলা হয়েছে, নতুন ছাত্রদের যে কোন ধরণের সাঁতারে অন্তত ৫০ মিটার পার হবার দক্ষতা থাকতে হবে। ভর্তি পরীক্ষার সময় যদি কেউ সাঁতার না জানে, তাহলে তাকে স্নাতক ডিগ্রি পাবার আগেই তা শিখে নিতে হবে। সূত্র: বিবিসি বাংলা