বিশ্বে উদ্বাস্তু ৬ কোটি ৫৬ লাখ : জাতিসংঘ

আপডেট: জুন ২০, ২০১৭, ১২:৩১ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা জানিয়েছে, বিশ্বজুড়ে এখন শরণার্থী, আশ্রয়প্রার্থী ও অভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুহারা মানুষের সংখ্যা ৬ কোটি ৫৬ লাখ।
বাৎসরিক প্রতিবেদনে সংস্থাটি জানিয়েছে, ২০১৬ সালের শেষ নাগাদ উদ্বাস্তু মানুষের এ সংখ্যা রেকর্ড করেছে তারা, যা ২০১৫ সালের চেয়ে ৩ লাখ বেশি।
২০১৪-২০১৫ সালের তুলনায় এ সংখ্যা বৃদ্ধি অল্পই বলা যায়। কারণ ওই দুই বছরে উদ্বাস্তু মানুষের সংখ্যা বেড়েছিল প্রায় ৫০ লাখ।
জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনার ফিলিপো গ্রান্ডি বলেছেন, এটি এখনো আন্তর্জাতিক কূটনীতির হতাশাজনক ব্যর্থতা। তিনি আরো বলেন, ‘মনে হচ্ছে,  শান্তি প্রতিষ্ঠায় বিশ্ব অপারগ হয়ে উঠছে।’
‘কারণ, আপনারা দেখুন- পুরোনো সংঘর্ষ চলছেই তো চলছে, নতুন নতুন সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ছে- উভয় কারণেই মানুষ উদ্বাস্তু হচ্ছে। বাস্তুচ্যুত হতে বাধ্য করা যুদ্ধের প্রতীক, যা কখনো শেষ হয় না।’
ফিলিপো গ্রান্ডি সতর্ক করেছেন, উদ্বাস্তু মানুষের চাপ নিতে হচ্ছে বিশ্বের দরিদ্রতম দেশগুলোকে। বিশ্বের দরিদ্র ও মধ্যম আয়ের দেশগুলোতে ৮৪ শতাংশ উদ্বাস্তু রয়েছে।
তিনি বলেন, ‘যেখানে ধনী দেশগুলো প্রত্যাখ্যান করছে, সেখানে কীভাবে আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য ও এশিয়ার দরিদ্র দেশগুলোকে লাখ লাখ উদ্বাস্তুর দায়িত্ব নিতে বলব আমি?’
জাতিসংঘ বলছে, সোমবার প্রকাশিত রেকর্ড সংখ্যক উদ্বাস্তুদের হিসাব প্রকাশ হয়তো ধনী দেশগুলোকে আবার চিন্তা করতে সাহায্য করবে : ‘শুধু আরো বেশি শরণার্থীদের গ্রহণই নয়, শান্তি আনায়নে ও পুনর্র্নিমাণে বেশি বেশি বিনিয়োগ করুন।’
সংখ্যায় বিশ্বের উদ্বাস্তু মানুষ
(যুক্তরাজ্যের মোট জনসংখ্যার চেয়ে বর্তমানে উদ্বাস্তু মানুষের সংখ্যা বেশি)
১। ২ কোটি ২৫ লাখ শরণার্থী, ২। নিজ দেশে বাস্তুহারা ৪ কোটি ৩ লাখ, ৩। আশ্রয়প্রার্থী ২৮ লাখ
শরণার্থীরা কোথা থেকে এসেছে
১। সিরিয়া : ৫৫ লাখ, ২। আফগানিস্তান : ২৫ লাখ, ৩। দক্ষিণ সুদান : ১৪ লাখ
শরণার্থীদের আশ্রয় দিয়েছে কারা
১। তুরস্ক : ২৯ লাখ, ২। পাকিস্তান : ১৪ লাখ, ৩। লেবানন : ১০ লাখ, ৪। ইরান : ৯৭ লাখ ৯৪ হাজার, ৫। উগান্ডা : ৯ লাখ ৪০ হাজার, ৬। ইথিওপিয়া : ৭ লাখ ৯১ হাজার ৬০০, ৭। সিরিয়ায় আরো ৬৩ লাখ মানুষ অভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচ্যুত।
তথ্যসূত্র: রাইজিংবিডি

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ