বিশ্বে এ প্রথম শিশুর ‘সফল’ হাত প্রতিস্থাপন

আপডেট: জুলাই ২০, ২০১৭, ১২:৫২ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


বিশ্বের প্রথম যে শিশুটির দুটি হাতই প্রতিস্থাপন করা হয়েছে সে জিওন হার্ভেই। জিওন এখন লিখতে, খেতে ও পোশাক পরতে পারে। অস্ত্রোপচারের ১৮ মাস পর মঙ্গলবার চমকে দেয়া এই সাফল্যের ঘোষণা দিলেন চিকিৎসকরা।
ল্যানসেট চাইল্ড অ্যান্ড অ্যাডোলেসেন্ট হেল্থ পত্রিকা প্রথমবারের মতো জিওনের (১০) সফল অস্ত্রোপচারের কথা প্রকাশ করে। ২০১৫ সালের জুলাই মাসে অত্যন্ত জটিল অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তার দুটি হাত প্রতিস্থাপন করা হয়।
ফিলাডেলফিয়ার শিশু হাসপাতালের চিকিৎসক সান্দ্রা আমারাল বলেন, ‘অস্ত্রোপচারের ১৮ মাস পর শিশুটি আরো সহজ ও স্বাভাবিকভাবে তার হাত নাড়াতে পারছে। দিনে দিনে শিশুটির হাতগুলো সম্পূর্ণভাবে সক্রিয় হয়ে উঠছে।’
এই হাসপাতালেই জিওনের অস্ত্রোপচার হয়। খবর এএফপি’র। দুই বছর বয়সে জিওনের হাত পায়ে পচন ধরায় সেগুলো কেটে বিচ্ছিন্ন করে ফেলা হয়। এছাড়া তার শরীরে একটি কিডনীও প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। হাত প্রতিস্থাপনে ১০ ঘন্টার বেশি সময় ধরে চলা অস্ত্রোপচারের সময় সে কিডনীর ওষুধ খাচ্ছিল। কিডনীটি এই অস্ত্রোপচারের ক্ষেত্রে একটি বড় ধরনের চিন্তার কারণ ছিল।
অস্ত্রোপচারের পর জিওনের মা আশা করতেন, জিওন একদিন নিজেই পোশাক পরতে, দাঁত মাজতে ও হাত দিয়ে খাবার খেতে পারবে।
২০১৫ সালের জুলাই মাসে জিওনের দেহে প্রতিস্থাপনের জন্য একটি মৃত শিশুর হাত পাওয়া যায়। ১৯৯৮ সালে একজন প্রাপ্ত বয়স্কের দেহে বিশ্বে প্রথম সফল হাত প্রতিস্থাপন করা হয়।
তথ্যসূত্র: বাসস