বিশ্বে প্রথমবার মৃগী রোগীর মাথায় সফল ডিভাইস প্রতিস্থাপন

আপডেট: জুন ২৫, ২০২৪, ৯:১৮ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক:


খিঁচুনি নিয়ন্ত্রণে বিশ্বে প্রথমবারের মতো একজন গুরুতর মৃগী রোগীর মাথায় বিশেষ একটি যন্ত্র বসানো হয়েছে। এর মাধ্যমে খিঁচুনি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে আসা সম্ভব বলে দাবি করছেন সংশ্লিষ্টরা।

গত বছর ওরান নোলসন নামের ১৩ বছর বয়সি এক কিশোরের মাথার খুলিতে পরীক্ষামূলকভাবে যন্ত্রটি বসানো হয়। এই যন্ত্র থেকে মস্তিষ্কে বৈদ্যুতিক সঙ্কেত পাঠান হচ্ছে, যার ফলে দিনের বেলা তাঁর খিঁচুনি অনেকটা কমে গেছে। ডিভাইসটির নাম হলো নিউরোস্টিমুলেটর, যেটি তৈরি করেছে ‘অ্যাম্বার থেরাপিউটিকস’ নামে ব্রিটিশ একটি কোম্পানি। এর মাধ্যমে মস্তিষ্কের গভীরে বৈদ্যুতিক সঙ্কেত পাঠান সম্ভব। লন্ডনের গ্রেট অরমন্ড স্ট্রিট হাসপাতালে গত বছরের অক্টোবরে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে ওরানের মাথায় যন্ত্রটি স্থাপন করা হয়েছিল।

ওরানের বিভিন্ন ধরনের খিঁচুনি হতো। কখনও কখনও সে প্রচণ্ডভাবে কাঁপতে কাঁপতে মাটিতে পড়ে যেত, জ্ঞানও হারিয়ে ফেলত। এমনকি, প্রায়ই তাঁর শ্বাস নেওয়া বন্ধ হয়ে যেত। তখন তাকে বাঁচাতে জরুরি ওষুধের প্রয়োজন হত। তবে নিউরোস্টিমুলেটর লাগানোর পর আগের থেকে অনেক ভাল আছে ওরান। মৃগী একটি স্নায়ু রোগ, যাতে আক্রান্ত হলে খিঁচুনি হয়। রোগটির প্রকৃত কারণ জানা না গেলেও মস্তিষ্কে আঘাত, স্ট্রোক, মস্তিষ্কে টিউমার বা সংক্রমণ, জন্মগত ত্রুটিকে সম্ভাব্য কারণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়।
তথ্যসূত্র: আজকাল অনলাইন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ