বিশ্ব কখনও করোনা মুক্ত হবে না বলেই আশঙ্কা প্রকাশ করল হু

আপডেট: জানুয়ারি ১৬, ২০২১, ২:১৩ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ফের আশঙ্কার কথা শোনাল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। করোনা মুক্ত বিশ্ব আর কোনওদিনই হবে কি না, সে বিষয়ে সংশয় প্রকাশ করল হু। শুক্রবার ‘হু’–র আপৎকালীন পরিস্থিতি মোকাবিলা বিষয়ক কমিটির ভার্চুয়াল বৈঠকে করোনাভাইরাসের নয়া স্ট্রেন (ভ্যারিয়ান্ট)–গুলির গণসংক্রমণ প্রবণতা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। ‘হু’–র সংশ্লিষ্ট কমিটির বৈঠকটি জানুয়ারির শেষ সপ্তাহে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পরিস্থিতির গুরুত্ব আঁচ করে তা দু’সপ্তাহ এগিয়ে আনা হয়। আগামী ১০০ দিনের মধ্যে প্রতিটি দেশে করোনা টিকাকরণ অভিযান শুরুর সুপারিশ করেছে কমিটি। টিকা বণ্টনের বিষয়ে ধনী দেশগুলির ‘ভূমিকা’ নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে বৈঠকে। পাশাপাশি, ‘হু’–এর টেকনিক্যাল টিমের প্রধান তথা মহামারী বিশেষজ্ঞ মারিয়া ভ্যান খেরখোভ করোনাভাইরাসের নয়া স্ট্রেনগুলির উৎপত্তি ও সংক্রমণের উৎস চিহ্নিত করার কথা বলেছেন।
বিশ্বজুড়ে কোভিড–১৯ সংক্রমণে মৃতের সংখ্যা ২ কোটি পেরিয়ে গেলেও সংক্রমণের নিম্নগতির ইঙ্গিত মেলেনি। ক্রমাগত মিউটেশনের ফলে উৎপত্তি ঘটেছে বাড়তি সংক্রমণ ক্ষমতাযুক্ত স্ট্রেনের। এদের মধ্যে লন্ডন ভ্যারিয়্যান্ট ৭০ শতাংশ বেশি সংক্রামক। সম্প্রতি ব্রাজিলে পাওয়া করোনাভাইরাসের নয়া স্ট্রেন এর অ্যান্টিবডি প্রতিরোধ ক্ষমতা নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছে ব্রিটেন। ওই স্ট্রেনটি কয়েকজন পর্যটকের মাধ্যমে জাপানে গিয়ে ফের চরিত্র বদলেছে বলে ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে ভাইরাস গবেষণা সংস্থাটির তরফে। এই পরিস্থিতিতে বিশ্ব কখনও আর ‘কোভিড–১৯ রোগী শূন্য’ হবে কি না, সে বিষয়ে সন্দিহান ‘হু’। বৈঠকের পর এক বিবৃতিতে ‘হু’–এর তরফে জানানো হয়েছে, জিন প্রযুক্তির সাহায্যে ডিএনএ বিশ্লেষণের মাধ্যমে করোনাভাইরাসের সবগুলি স্ট্রেন চিহ্নিত করা প্রয়োজন। প্রয়োজন বিশ্বজুড়ে তথ্যের আদানপ্রদান। না হলে আরও বড় বিপর্যয়ের আশঙ্কা রয়েছে।
তথ্যসূত্র: আজকাল

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ