বীরের মতো মাঠ ছাড়লেন লিওন

আপডেট: মার্চ ৫, ২০১৭, ১২:২২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



প্রথম টেস্টে ভারতকে বিধ্বস্ত করে রেকর্ডধারী হয়েছিলেন স্টিভ ও’কিফ। এবার তাকে পাশে ঠেলে দিয়ে নায়ক হয়ে উঠলেন নাথান লিয়ন। ডানহাতি এই স্পিনারের ঘূর্ণিতে দ্বিতীয় টেস্টে বিধ্বস্ত হয়েছে স্বাগতিকরা। মাত্র ১৮৯ রানে ভারতের প্রথম ইনিংস গুটিয়ে দেওয়ার পথে কয়েকটি রেকর্ড নতুন করে লিখেছেন অস্ট্রেলিয়ান এ স্পিনার। ডেভিড ওয়ার্নার (২৩*) ও ম্যাট রেনশো (১৫*) অপরাজিত থাকায় বিনা উইকেটে ৪০ রান করে দিন শেষে অস্ট্রেলিয়া চালকের আসনে। তবে নিঃসন্দেহে প্রথম দিনটি শুধুই লিয়নের। অভিনব মুকুন্দ ও করুন নায়ারের উইকেট দুটি বাদে ভারতের বাকি উইকেটগুলো লিয়নের দখলেই। ৫০ রান খরচ করে এই স্পিনারের শিকার ভারতের ৮ ব্যাটসম্যান। অর্থাৎ তার বোলিং ফিগার ৮/৫০; অস্ট্রেলিয়ার কোনও স্পিনারের দ্বিতীয় সেরা। যেখানে তার উপরে কেবল আর্থার মাইলি; ১৯২০-২১ মৌসুমের অ্যাশেজে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে যিনি ১২১ রান খরচায় ৯ উইকেট নেন। আর দেশের যে কোনও ধরনের বোলার হিসেবে ষষ্ঠ সেরা পারফরম্যান্স দেখালেন লিয়ন।
ভারতের বিপক্ষে লিয়নের উইকেট সংখ্যা ৫৮টি। দলটির বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়ার শীর্ষ উইকেটশিকারি তিনি। অশ্বিনের উইকেট নিয়ে লিয়ন পেছনে ফেলেন ব্রেট লির ৫৩ উইকেটের আগের রেকর্ডটি।
ভারতের মাটিতে কোনও সফরকারী বোলার হিসেবে আগের সেরা রেকর্ডটি ছিল ৮/৬৪; মালিক ছিলেন ল্যান্স ক্লুসনার। ১৯৯৬-৯৭ মৌসুমে অভিষেক ম্যাচে গড়া দক্ষিণ আফ্রিকানের রেকর্ড পড়ে গেল লিয়নের পেছনে। ভারতে এক ইনিংসে ৮ উইকেট নেওয়া চতুর্থ বিদেশি বোলার হলেন লিয়ন। অন্য দুইজন হলেন সিকান্দার বাখত ও জ্যাসন ক্রেজা।
ভারতের বিপক্ষে এক ইনিংসে সর্বাধিক ৭ বা তার বেশি উইকেট নেওয়ার কৃতিত্ব গড়লেন লিয়ন- এনিয়ে তৃতীয়বার। অ্যালেক বেডসার, রে লিন্ডওয়াল, ল্যান্স গিবস ও মুত্তিয়া মুরালিধরন ভারতীয়দের বিপক্ষে দুইবার করে এ কীর্তি গড়েছিলেন। এই ৮ উইকেটের আগে লিয়ন দিল্লিতে ২০১২-১৩ মৌসুমে ৯৪ রান খরচায় ৭ ও ২০১৪-১৫ মৌসুমে অ্যাডিলেডে ১৫২ রান খরচায় ৭ উইকেট নেন।
চেতেশ্বর পূজারা, বিরাট কোহলি ও আজিঙ্কা রাহানে বেঙ্গালুরু টেস্টের প্রথম ইনিংসে আউট হন লিয়নের কাছে। এনিয়ে ৫ বার এ অজি স্পিনারের শিকার হলেন তারা। পূজারা ও রাহানে তাদের ক্যারিয়ারে সবচেয়ে বেশিবার একই বোলারের কাছে উইকেট হারালেন। কোহলি এনিয়ে দ্বিতীয়বার একই বোলারের কাছে সবচেয়ে বেশি আউট হলেন,এর আগে ইংল্যান্ডের জেমস এন্ডারসন ৫ বার তাকে আউট করেছিলেন।
এক কথায় দিনটা শুধুই ছিল লিয়নের। যদিও তার ঘূর্ণির মুখে ব্যতিক্রম ছিলেন শুধু লোকেশ রাহুল। এই ওপেনারের ইনিংসটা বাদ দিলে কোহলিদের রান তো ১০০-ও হয় না! লোকেশ নবম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়ার আগে খেলেন ৯০ রানের ইনিংস। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৬ রান করেছেন নায়ার।
অস্ট্রেলিয়ার উইকেট উৎসবের শুরুটা করেছিলেন অবশ্য মিচেল স্টার্ক। কাঁধের চোটের কারণে মুরালি বিজয় ছিটকে যাওয়ায় সুযোগ হয়ে যায় মুকুন্দের। যদিও সুযোগটা একেবারেই কাজে লাগাতে পারেননি তিনি। রানের খাতা খোলার আগেই তিনি প্যাভিলিয়নে ফেলেন স্টার্কের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে। তিন নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে পূজারা প্রতিরোধ গড়েছিলেন লোকেশকে নিয়ে। যদিও সেই প্রতিরোধ ভেঙে যায় লাঞ্চের আগ মুহূর্তে, আর পূজারার (১৭) উইকেট দিয়েই শুরু হয় লিয়নের অবিশ্বাস্য পথ চলা। এর পর এই স্পিনার একে একে তুলে নিয়েছেন কোহলি (১২),রাহানে (১৭),অশ্বিন (৭), ঋদ্ধিমান সাহা (১), রবীন্দ্র জাদেজা (৩), লোকেশ ও ইশান্ত শর্মার (০) উইকেট। সূত্র- ক্রিকইনফো,বাংলা ট্রিবিউন