বীর মুক্তিযোদ্ধার সাথে রাসিক কাউন্সিলরের দুর্ব্যবহার, প্রতিবাদে হবে মানববন্ধন

আপডেট: মার্চ ১৭, ২০২৪, ১২:১০ পূর্বাহ্ণ


নিজস্ব প্রতিবেদক:রাজশাহী সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর আবদুল হামিদ সরকার টেকনের বিরুদ্ধে দুর্বব্যবহার ও কটুক্তির প্রতিবাদে মানববন্ধন করবেন মুক্তিযোদ্ধারা। রোববার (১৭ মার্চ) বেলা ১১টায় সাহেববাজার জিরোপয়েন্টে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হবে।

শনিবার (১৬ মার্চ) দুপুর ১২ টায় মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে সংবাদ সম্মেলন করে এই তথ্য জানান তারা। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে দুর্ব্যবহার, কটুক্তি ও মারমুখী অশালীন আচরণের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি। কাউন্সিলর আবদুল হামিদ সরকার টেকন ২২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ মহানগর ইউনিটের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. আবদুল মান্নান সরকার বলেন, শুক্রবার (১৫ মার্চ) বিকেল ৪টার সময় সাগরপাড়া মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা চলাকালীন ২২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুল হামিদ সরকার টেকন উত্তেজিত ও রাগান্নিত অবস্থায় চিৎকার করতে করতে প্রবেশ করে। এসময় তিনি আমাকে ও উপস্থিত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের লক্ষ্য করে কটুক্তি, দুর্ব্যবহার ও মারমুখী অশালীন আচরণ করতে থাকে। এক পর্যায়ে বলতে থাকে, ‘আপনি একজন বাজে লোক, নাইট গার্ডের বেতন দিতে পারেন না আপনি কিসের মুক্তিযোদ্ধা? মুক্তিযোদ্ধারাই কি সবকিছু।’

তিনি আরও বলেন, দিন দশেক আগে আবদুল হামিদ সরকারকে জানিয়েছিলাম এই ভবনের দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলায় উঠার সিঁড়ির টাইলস ঠিকমত বসানো হয়নি। নীচে নামতে গেলেই পা পিছলিয়ে পড়ার ভয় আছে, দুর্ঘটনার সম্ভাবনা আছে। তুমি সিঁড়ির টাইলসের সমস্যার সমাধান করে দিও। উনি আমার কথার কোন উত্তর দিলেন না। আমিও এই প্রসঙ্গে আর কোন কথা বলিনি। আমি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপকের সঙ্গে কথা বললাম, তিনি ব্যবস্থা করে দিতে চেয়েছেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধার আরও বলেন, টেকন আমাদের সাথে মুখে ভাল কথা বলে কিন্তু বাস্তবে উল্টো করে। ভবনের বিদ্যুৎ সামগ্রী নিম্নমানের, সুইচে টিপ দিতেই ভিতরে ঢুকে যায়, আর কোন কাজ করে না। যে সমস্ত আসবাবপত্র সরবরাহ করেছে সেগুলোও মানসম্মত নয়। ওয়াস রুমের ফিটিংসও শিডিউল মোতাবেক দেয়নি। কাজের মধ্যে অনিয়ম ও ত্রুটি আছে। এই সমস্ত বিষয় ধামাচাপা দেওয়ার জন্যই মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে এই ধরনের আচরন করেছে বলেও অভিযোগ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের।

বিষয়টি বীর মুক্তিযোদ্ধার নিকট মান-সম্মান ও ভাবমূর্তির ওপর চরম আঘাত স্বরূপ। আমরা তার ন্যাক্কারজনক দুর্ব্যবহার, কটুক্তি ও অশালীন আচরণের তীব্র প্রতিবাদ ও আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট অনুরোধ জানান ডা. আবদুল মান্নান।

এবিষয়ে কথা বলার জন্য আবদুল হামিদ সরকার টেকনকে কল দিলে তিনি ধরেননি। তাই তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ