বৃষ্টিতে জনজীবনে স্বস্তি

আপডেট: এপ্রিল ৩০, ২০১৭, ১২:১৫ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


বৃষ্টিতে স্বস্তি ফিরেছে জনজীবনে। গতকাল শনিবার সন্ধ্যার আগে নগরীতে থেমে থেমে হালকা বৃষ্টি শুরু হয়। এরপর থেকে প্রকৃতিতে শীতল আবহাওয়া অনুভুত হয়। বেশ কয়েকদিন থেকে রাজশাহী অঞ্চলে দাবদাহ থাকায় গরমে অতিষ্ঠ হয়ে ওঠে নগরবাসী। বৃষ্টির পর থেকে ভ্যাপসা গরমের তীব্রতা কমতে থাকে। স্বস্তি ফিরে আসে প্রকৃতিতে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্য মতে, আম ও মাঠের ফসলের ওপর বৃষ্টি ও হালকা ঝড়ে তেমন কোন প্রভাব পড়েনি।
রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের উচ্চ পর্যবেক্ষক শহিদুল ইসলাম বলেন, গতকাল বিকেল ৫টা ১৫ মিনিট থেকে ৬ টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত ৩ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৬ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস ও সর্বনি¤্ন তাপমাত্রা ছিল ২৬ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সকালে বাতাসের আর্দ্রতা ছিল ৯৪ শতাংশ ও বিকেলে বাতাসের আর্দ্রতা ছিল ৭০ শতাংশ। এছাড়া গত শুক্রবার দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৭ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়ান ও সর্বনি¤্ন তাপমাত্রা ছিল ৩৬ দশমিক ২৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সকালে বাতাসের আর্দ্রতা ছিল ৯২ শতাংশ ও বিকেল ছিল ৬৯ শতাংশ।
নগরীতে সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত রৌদের প্রখরতা ছিল তীব্র ও ভ্যাপসা গরম। সন্ধ্যার আগে হালকা বাতাস ও থেমে থেমে বৃষ্টিপাতের ফলে শীতল হয়ে ওঠে পরিবেশ। সারাদিন নগরীতে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক থাকলেও বৃষ্টির সময় সাময়িক স্থবির হয়ে পড়ে জনজীবন। এছাড়া বৃষ্টির আগে নগরীতে বিদ্যুৎ বিভ্রাট দেখা দেয়।
রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপপরিচালক দেব দুলাল ঢালি বলেন, রাজশাহী অঞ্চলে যে পরিমাণ বৃষ্টিপাত হয়েছে তাতে আম ও ফসলের ওপর কোন প্রভাব পড়বে না। তবে বেশি পরিমাণ বৃষ্টি হলে আম ঝড়ে যেতে পারে।