বৃষ্টি বাড়িয়ে দিলো ১৩ বছরের অপেক্ষা

আপডেট: মার্চ ৩০, ২০১৭, ১২:১৬ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ১৩ বছর পর টেস্ট জয়ের স্বপ্ন দেখছিল নিউজিল্যান্ড। স্বপ্নটা অমূলক কিছু ছিল না। প্রথম ইনিংসে ১৭৫ রানে পিছিয়ে থেকে ব্যাটিংয়ে নেমে ৮০ রানেই ৫ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। নিউজিল্যান্ডকে দ্বিতীয়বার ব্যাটিংয়ে নামাতে দরকার ছিল আরও ৯৫ রান। জয় চোখের সামনে থাকতেই হ্যামিল্টন টেস্টের শেষ দিনটা চলে গেল বৃষ্টির পেটে। এতে লাভ হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকার। হারের শঙ্কাও যে তাতে ধুয়ে গেছে। সিরিজে বিজয়ী দল এখন ফাফ ডু প্লেসির দলই।
দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে নিউজিল্যান্ড শেষ জয়টি পেয়েছিল ১৩ বছর আগে। মাঝে দুই দল খেলে ফেলেছে ১৫টি টেস্ট। ১০টি টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকা জিতেছে, ৫টি ড্র হয়েছে। এক যুগেরও বেশি সময় পেরিয়ে যাওয়ার পর তাও যা কিউদের জয়ের একটা সম্ভাবনা দেখা দিয়েছিল, তা ভেস্তে দিলো বৃষ্টি।
পেতে যাওয়া এক জয় না পাওয়ায় স্বভাবতই হতাশ নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। তাঁর অনবদ্য ১৭৬ রানের ইনিংসই জয়ের পথ দেখিয়েছিল নিউজিল্যান্ডকে, ‘শেষ দিনে আমাদের অনেক কিছুই পাওয়ার ছিল। স্বাভাবিকভাবেই আমি খুব হতাশ। তবে এটা ঠিক বৃষ্টি এই টেস্টে যেভাবে বারবার হানা দিয়েছে, তাতে একটুকু ক্রিকেট যে আমরা খেলতে পেরেছি, তাতে নিজেদের ভাগ্যবানই ভাবা উচিত।’
৮০ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে কাল দিন শেষ করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম শুরু করেছিলেন। ব্যাট হাতে ৫৭ রান করার পর দক্ষিণ আফ্রিকার ওপেনার ডিন এলগারকে আউট করেন তিনি। এরপর জিতান প্যাটেল তুলে নেন দুই উইকেট। হাশিম আমলা প্যাটেলের বলে স্লিপে ক্যাচ দিয়েছেন অলস এক শট খেলে। প্যাটেলের অন্য উইকেটটি জেপি ডুমিনির। ডি ব্রুইন হয়েছেন রান আউট। আর ম্যাট হেনরি তুলে নেন টেম্বা বাভুমাকে।
বিপর্যয়ের মুখে দাঁড়িয়ে শেষ দিনটা বৃষ্টিতে ভেসে যেতে দেখে নিজেকে সৌভাগ্যবানই ভাবছেন প্রোটিয়া অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসি, ‘এটা বলাই যায়, বৃষ্টি আমাদের বাঁচিয়ে দিয়েছে। শেষ দিনে আমাদের করণীয় সম্পর্কে আমরা সচেতন ছিলাম। তবে নিউজিল্যান্ড সত্যিই দুর্ভাগা।’ সূত্র: এএফপি,প্রথম আলো অনলাইন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ