‘বেঁচে উঠবে মেয়ে’, আশায় তিনদিন ধরে মরদেহ আগলে বৃদ্ধা, পুলিশ দেহ সরাতেই মৃত্যু মায়ের

আপডেট: মে ১, ২০২৪, ৬:৩১ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


রবিনসন স্ট্রিটের ছায়া উত্তর ২৪ পরগনার বরানগরে। তিনদিন ধরে মেয়ের মরদেহ আগলে রাখলেন মা। মেয়ের দেহ উদ্ধারের পরদিনই মৃত্যু হল মায়ের। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য এলাকায়। বৃদ্ধার মৃত্যুর কারণ নিয়ে তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা।

জানা গিয়েছে, বরানগর ১ নম্বর টিএন চ্যাটার্জী রোডে লালবাড়ি আবাসনের বাসিন্দা দেবী ভৌমিক ও তাঁর মেয়ে দেবলীনা। স্থানীয় সূত্রের খবর, মঙ্গলবার (৩০ এপ্রিল) সকাল থেকেই এলাকার বাসিন্দারা আবাসনের প্রথমতল থেকে দুর্গন্ধ পাচ্ছিলেন। এক পর্যায়ে বাধ্য হয়ে কলিং বেল বাজান প্রতিবেশীরা। ঘর খুলতেই চমকে ওঠে এলাকার তাঁরা। দেখেন, গৃহকর্ত্রী দেবী ভৌমিক তাঁর মেয়ের মরদেহ আগলে বসে রয়েছেন। ওই নারী জানান, মেয়ে বেঁচে উঠবে এই আশায় অপেক্ষা করছেন তিনি। এর পরই খবর দেয়া হয় বরানগর থানায়। পুলিশ গিয়ে তরুণীর দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে।

একরাত পেরতে না পেরতেই বুধবার মৃত্যু হল দেবী ভৌমিকের। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ২০০৬ সালে তাঁর স্বামীর সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। তার পর থেকে মেয়ে দেবলীনাকে নিয়েই থাকতেন। তেমনভাবে মিশতেন না প্রতিবেশীদের সঙ্গে। সিজোফ্রেনিয়া রোগে ভুগছিলেন। কিন্তু হঠাৎ কী কারণে এই মৃত্যু, তা নিয়ে তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা।
তথ্যসূত্র: সংবাদ প্রতিদিন অনলাইন

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ