বঙ্গবন্ধুর শততম জন্মবার্ষিকী

বেগম জিয়ার মুক্তির দাবিতে নগরীতে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত

আপডেট: December 9, 2019, 1:04 am

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি


নগরীতে বিএনপি’র বিক্ষোভ সমাবেশে নেতাকর্মীরা সোনার দেশ

বেগম জিয়ার মুক্তির দাবিতে নগরীতে বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। রাজশাহী মহানগর ও জেলা বিএনপির আয়োজনে গতকাল রোববার বেলা ১১টার দিকে নগরীর মালোপাড়া বিএনপি কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ হয়। আপিল বিভাগের নির্দেশনা সত্ত্বেও সরকার মেডিকেল রিপোর্টা না দেয়ার প্রতিবাদে এবং দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে এই সমাবেশ করেন বিএনপি নেতাকর্মীরা।
বিক্ষোভ সমাবেশে বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপির আহবায়ক আবু সাঈদ চাঁদ এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন, বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রাজশাহী মহানগর বিএনপি এর সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। বিশেষ অতিথি ছিলেন, বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন।
এছাড়াও জেলা মহানগর বিএনপির সহ-সভাপডতি শফিউল আলম বুলু, বিএনপির সদস্য সৈয়দ মহসিন আলী, রাজপাড়া থানা বিএনপির সভাপতি শওকত আলী, মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আসলাম সরকার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওয়ালিউল হক রানা, জেলা বিএনপির সদস্য অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম, আনোয়ার হোসেন উজ্জল, আব্দুর রাজ্জাক, শাহজাহান আলী, কৃষকদল কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য পিন্টুসহ মহানগর, থানা, উপজেলা, ইউনিয়ন, পৌরসভা ও বিভিন্ন ওয়ার্ড বিএনপি, অঙ্গ ও সংগঠনের নেতাকর্মী এবং সমর্থকগণ উপস্থিত ছিলেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে বুলবুল বলেন, বর্তমান অধৈব সরকার ২০০৮ ও ২০১৪ সালে ভোট চুরি ও ২০১৯ সালে ডে-নাইট ভোট ডাকাতী করে ক্ষমতায় এসেছে। আর এই সরকারকে ক্ষমতায় আসার জন্য সারসরি কাজ করেছে আইন শৃংখলা বাহিনী। এখন সেই আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর মেয়েদেরও ধর্ষণ করে মেরে ফেলছে এই সরকবারের সন্ত্রাসীরা। মাদকের রাজ্যে প্রবেশ করাচ্ছে সরকারের প্রভাবশালী নেতারা। জনগণের সমর্থন না নিয়ে সরকার গঠন করায় এখন আইন শৃংখলা বাহিনী ও পার্শবর্তী রাষ্ট্রের তাবেদারী করছে এই সরকার। বর্তমান প্রধানমন্ত্রীকে অচিরেই জেলখানা ডাকছে মন্তব্য করে বুলবুল বলেন, দেশে যে ভাবে হত্যা, গুম, ধর্ষণ, অর্থ পাচার, দূর্নীতি ও নিত্যা প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে তাতে সরকার প্রধানের নিস্তার নাই। জনগণই তার বিচার করবে। তিনি আরো বলেন, ১২ তারিখে বেগম জিয়ার জামিন না হলে কঠোর আন্দোলনের মাধ্যমে তাকে মুক্ত করা হবে।
এ সময় মিলন বলেন, রাজশাহীতে প্রকাশ্যে হত্যা শুরু হয়েছে। যা পূর্বে এমনটা ছিল না। একের পর এক হত্যা সংগঠিত হলেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কিছুই করতে পারছেনা। অথচ বিএনপিকে গণতান্ত্রিক অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। দেশে এখন খারাপের সংখ্যা বেরে গেছে। বতর্মান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে ভোট চুরি করে দলকে ক্ষমতায় নিয়ে এসেছেন। তিনি শুরুতেই অন্যায় করেছেন। এখন অন্যের দোষ ও অন্যায় দেখে বেড়াচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী যে অপরাধ করেছেন তার জন্য বেগম খালেদা জিয়ার নিকট ক্ষমা চাওয়ার জন্য বলেন তিনি। বেগম জিয়া ক্ষমা করলে জনগণ হয়ত প্রধানমন্ত্রীকে ক্ষমা করতে পারে।
সভাপতির বক্তব্যে চাঁদ উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে আগামীতে আন্দোলনের জন্য প্রস্তুত থাকার জন্য নেতাকর্মীদের আহবান জানান।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ