বেসরকারি হজযাত্রী নিবন্ধনের সময় বাড়লো ৬ দিন

আপডেট: এপ্রিল ১৮, ২০১৭, ১২:৩১ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


চলতি বছর হজে যেতে প্রাক নিবন্ধিত বেসরকারি হজযাত্রীদের নিবন্ধনের সময় আরো ছয় দিন বাড়ানো হয়েছে। রাজধানীর বেইলিরোডে ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মোহাম্মদ মতিউর রহমানের সরকারি বাসায় সোমবার বিকেলে এক জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।
সোমবার বিকেল ৫টা পর্যন্ত নিবন্ধনের শেষ সময় বেঁধে দিয়েছিল ধর্ম মন্ত্রণালয়।
এই নিবন্ধনের সময় বাড়ানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ধর্ম মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন।
এ প্রসঙ্গে হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (হাব) এর সভাপতি ইব্রাহিম বাহার রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘ধর্মমন্ত্রী মহোদয়ের সঙ্গে আমাদের ফলপ্রসু আলোচনা হয়েছে। বৈঠকে ২৩ এপ্রিল পর্যন্ত প্রাক নিবন্ধিত বেসরকারি হজযাত্রীদের ব্যাংকে টাকা জমাদানসহ নিবন্ধনের শেষ সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।’
তিনি বলেন, ‘এ সিদ্ধান্তের কারণে সুন্দরভাবে এজেন্সিগুলো নিবন্ধন প্রক্রিয়া শেষ করতে পারবে।’
ধর্মমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বৈঠকে অংশ নেন জাতীয় সংসদের ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কীত স্থায়ী কমিটির সভাপতি বজলুল হক হারুন এমপি, ধর্ম মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব মো. হাফিজ উদ্দিন, হাব সভাপতি ইব্রাহিম বাহার, সাবেক সভাপতি জামাল উদ্দিন, বর্তমান মহাসচিব শেখ আবদুল্লাহ ও সরকারের করে দেওয়া এজেন্সিগুলোর ১৭ সদস্যের কমিটি।
সোমবার বিকেল ৪টার দিকে মন্ত্রীর বাসায় বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকে এজেন্সিগুলোর পক্ষ থেকে বলা হয়, ১৭ এপ্রিল নিবন্ধনের শেষ সময় দিয়ে এজেন্সিগুলোকে বিপদে ও আতংকের মধ্যে ফেলা হয়েছে। এটা ঠিক হয়নি। হজযাত্রীরা টাকা, পাসপোর্ট না দিলে এজেন্সিগুলো কীভাবে নিবন্ধন শেষ করবে।
মাত্র একদিন আগে ব্যাংকে টাকা জমা দেয়ার সরকারি বিজ্ঞপ্তির সমালোচনাও করা হয়। বলা হয়, একদিন আগে প্রজ্ঞাপন না দিয়ে আরো আগ থেকে প্রাক নিবন্ধিত হজযাত্রীদের টাকা দেয়ার নির্দেশনা দেয়া সরকারের উচিত ছিল। তাহলে হজযাত্রীরা এই সময়ের মধ্যে টাকা পয়সা ও অন্যান্য কাগজপত্র এজেন্সিগুলোর কাছে জমা দিয়ে দিতো। মাত্র একদিন আগে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে নিবন্ধন কাজকে আরো জটিল করে তোলা হয়েছে। এজন্য উপস্থিত নেতাদের কেউ কেউ হাবের বর্তমান নেতৃত্বকে দায়ী করেন।
তারা বলেন, হাবের নির্বাচনকে সামনে রেখে এজেন্সিগুলোকে জিম্মি করে ফায়দা লোটার জন্যই একদিনের সময় দিয়ে ১৭ এপ্রিল টাকা জমা দেয়ার শেষ সময় ঠিক করা হয়। অথচ আগ থেকে সিদ্ধান্ত ছিল ২০ এপ্রিল পর্যন্ত নিবন্ধন করা যাবে। এ কারণে অধিকাংশ এজেন্সি নিবন্ধন করতে পারেনি। তারা ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত সময় বাড়ানোর জোরালো দাবি জানালে ধর্মমন্ত্রী উভয়পক্ষের বক্তব্য শুনে সবার সম্মতি নিয়ে আগামী ২৩ এপ্রিল পর্যন্ত সময় বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন।- রাইজিংবিডি