বেহাল দশা বনপাড়া-লালপুর সড়ক! চলাচলকারীদের দুর্ভোগ

আপডেট: আগস্ট ৩, ২০১৭, ১:২২ পূর্বাহ্ণ

সুফি সান্টু, নাটোর


হাজারো গর্তে ভরা এ সড়কে চলাচলকারীদের এভাবেই দুর্ভোগে পড়তে হয়-সোনার দেশ

নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়া থেকে লালপুর বাজার পর্যন্ত প্রায় ২০ কিলোমিটার রাস্তা। হাজারো গর্তে ও কাদাপানিতে গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এই সড়কে চলাচল করতে গিয়ে যাত্রী, চালকসহ যানবহন প্রতিনিয়ত দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে সাধারণ মানুষ। সড়কটি দিয়ে প্রতিদিন ৪০ হাজারের মতো জনসাধারণ চলাচল করলেও দুর্ভোগ নিরসনে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হয় নি। ফলে প্রতিদিন ঘটছে ছোট বড় দুর্ঘটনা।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বনপাড়া-লালপুর সড়কের কার্পেট উঠে গিয়ে রাস্তা জুড়ে সৃষ্টি হয়েছে হাজারো ছোট-বড় গর্ত। আর তাতে একটু বৃষ্টি হলে কাদা পনিতে একাকার হয়ে পড়ছে সড়কটি। বিশেষ করে ভুঁইয়াপাড়া, চন্ডিপুর, ওয়ালিয়া হাইস্কুলের সামনে, চকনাজিরপুর, গোপালপুর রেলগেটের সামনে ও লালপুর বাজার এলাকার সড়কগুলো যেন এক একটা মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি সংস্কারের অভাবে প্রায় চলাচলের অনুপযোগী হবার উপক্রম। সংশ্লিষ্ট জনপ্রতিনিধিরা বরাবর সংস্কারের আশ্বাস দিলেও তা সংস্কার হচ্ছে না বলে অভিযোগ করছেন রাস্তায় চলাচলকারী পথযাত্রী ও যানবাহন মালিকরা। তবে মাঝেমধ্যেই দেখা যায় সড়ক ও জনপথ বিভাগের লোকজন এসে পাকা সড়কের উপড়ে ইট বিছিয়ে সাময়িক সংস্কার করে দিচ্ছে।
এদিকে গত কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিতে সড়কটি বিপজ্জনক হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর এর মধ্যে ঝুঁকি নিয়ে প্রতদিন শত শত শিক্ষার্থী, পথযাত্রীসহ সাধারণ মানুষ চলাচল করছেন। সড়কটির বেহাল দশার কারণে প্রতিদিনই যাত্রীবাহী বাসও পণ্যবাহী যানবাহনগুলো ধীর গতিতে চালাচল করার কারণে সময়মতো গন্তব্যস্থলে পৌঁছাতে পারছে না। ফলে বিভ্রান্তিতে পরতে হচ্ছে যাত্রী ও পরিবহন মালিকদের। পাশাপাশি যানবহন নষ্ট হওয়ায় আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন পরিবহন মালিকরা। সড়কটি খানাখন্দে পরিপূর্ণ হওয়ায় অবর্ণনীয় দুর্ভোগ চলাচলকারীদের।
এ ব্যাপারে নাটোর সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের নির্বাহী প্রকৌশলী আশরাফুল ইসলাম প্রামাণিক জানান, বর্ষাকাল হওয়ায় রাস্তারগুলো সংস্কার করা যাচ্ছে না। তবে আবহাওয়া ভালো হলে রাস্তার ভাঙা স্থানগুলি পাথর, ইট, বালু ও পিস দিয়ে সমান করে চলাচলের উপযোগী করা হবে। এই মুহূর্তে কোন বরাদ্দ নেই, তবে সেপ্টেম্বর ও অক্টোবর মাসে টেন্ডার হলে রাস্তা পূর্ণ সংস্কার হবে।
দ্রুত সময়ের মধ্যে বনপাড়া-লালপুর সড়কটি পূর্ণ সংস্কার করে চলাচলের উপযোগী করার দাবি জানিয়েছে যাত্রী ও পরিবহন মালিকরা।