ব্যক্তিগত গোপনীয়তা ‘মৌলিক অধিকার’: ভারতের আদালত

আপডেট: আগস্ট ২৫, ২০১৭, ১:৩৭ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ভারতের সংবিধানে নাগরিকদের ব্যক্তিগত গোপনীয়তাকে ‘মৌলিক অধিকার’ হিসেবে সুরক্ষা দেওয়া হয়েছে বলে এক রায়ে বলেছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট।
প্রত্যেক নাগরিকের জন্য ১২ ডিজিটের নম্বরযুক্ত ‘আধার কার্ড’ নামে একটি পরিচয়পত্র ভারত সরকার বাধ্যতামূলক করার বিরুদ্ধে করা বেশ কয়েকটি রিট আবেদন ও রুল নিষ্পত্তি করে বৃহস্পতিবার এ রায় দেয়া হয়।
ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভির এক খবরে বলা হয়, ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের নয় সদস্যের একটি বেঞ্চের সব বিচারক সর্বসম্মতভাবে রায়ে ব্যক্তিগত গোপনীয়তাকে ‘মৌলিক অধিকার’ হিসেবে চিহ্নিত করেন।
সামাজিক সুরক্ষা খাতের বিভিন্ন সুবিধা পেতে কেন্দ্রীয় সরকার আধার কার্ড বাধ্যতামূলক করার সিদ্ধান্ত নেয়। এর বিরুদ্ধে করা আবেদনকারীদের ভাষ্য, আধার কার্ড ব্যবহারে জোর জবরদস্তি গোপনীয়তা ভাঙার শামিল।
আধারের তথ্যভাণ্ডারে নিবন্ধন একটি ঐচ্ছিক বিষয় হিসেবে তুলে ধরে এতে তথ্য দেয়া প্রত্যেক ভারতীয়কেই একটি পরিচিতিপত্র দেয়ার প্রস্তাব ছিল বলে দাবি তাদের।
আধারের কার্ড নিতে গেলে নাগরিকদের চোখের আইরিশের প্রতিচ্ছবি ও আঙ্গুলের ছাপ দিতে হয়, যা তথ্যভাণ্ডারে জমা থাকবে। এছাড়া নাম-ঠিকানা ও আর্থিক লেনদেন থেকে শুরু করে নাগরিকদের ব্যক্তিগত তথ্যভাণ্ডার তৈরির প্রায় যাবতীয় তথ্য ওই ভাণ্ডারে রক্ষিত থাকবে।
একে ব্যক্তিগত গোপনীয়তা ভঙ্গের অভিযোগ এনে আবেদনের পর রায়ে ‘ব্যক্তিগত গোপনীয়তা’কে মৌলিক অধিকারের স্বীকৃতি দেওয়া বিচারকরা বলছেন, ভারতীয় সংবিধানের ২১ অনুচ্ছেদে দেয়া জীবন ধারণ ও ব্যক্তিগত স্বাধীনতার রক্ষার অংশ হিসেবেই ব্যক্তিগত গোপনীয়তা রক্ষার অধিকারের সুরক্ষা দেয়া হয়েছে।
এছাড়া সংবিধানে তৃতীয় ভাগের ব্যক্তিগত স্বাধীনতার যে নিশ্চয়তা দেয়া হয়েছে তার মধ্যেও পড়বে ‘ব্যক্তিগত গোপনীয়তা’ রক্ষার অধিকার।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ