ব্যস্ত জংশনে বাচ্চা জন্ম: দাত্রীর ভূমিকায় ৬০ বছর বয়সি ভিক্ষুক

আপডেট: মার্চ ১৪, ২০১৭, ১২:১৫ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



উত্তর কর্নাটকের মানভি শহরে এই ঘটনাটি ঘটে। শহরটির ব্যস্ততম জংশনে বাচ্চা জন্ম দেন ৩০ বছর বয়সি এক ভারতীয় নারী। ইয়েল্লাম্মা নামে সে নারী সেখানে প্রসববেদনায় অজ্ঞান হয়ে যান। ইয়েল্লাম্মা একটি মেয়ে সন্তানের মা হতে চেয়েছিলেন। কিন্তু রাস্তার মাঝখানেই তার আকাঙ্খিত মেয়েটি পৃথিবীর মুখ দেখবে সে হয়তো সেটা ভাবে নি। আরো মজার বিষয় হচ্ছে সেই ক্রান্তিকালে দাত্রীর ভূমিকা পালন করেছিলেন ৬০ বছর বয়সি এক ভিক্ষুক। উত্তর কর্নাটকের রায়চুর জেলার মানভি শহরে ঘটা এ বিস্ময়কর ঘটনা নিয়ে বলতে গিয়ে মানভির এমএলএ জি হাম্পাইয়া নায়ক বালাতজি ফোনে জানান, ‘আমাদের শহরে সুন্দরতম একটি ঘটনা ঘটলো। বর্তমানে মা ও শিশু সুস্থ আছেন।’ মানভি শহরটি বেঙ্গালুরু থেকে ৪৫০ কিলোমিটার দূরে।
তিন সন্তানের জননী ইয়েল্লাম্মা মানভির সান্না বাজার এলাকার বাসিন্দা। তার স্বামী কৃষিবিদ রামান্না। রামান্না ও ইয়েল্লাম্মা দম্পত্তি একটি মেয়ে সন্তান কামনা করছিলেন। ঘটনার দিন একটি বেসরকারি হাসপাতালে গিয়েছিলেন সে দম্পত্তি। ৩৬ সপ্তাহ পার করা গর্ভবতী ইয়েল্লাম্মাকে রাইচুর ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্সেস (আরআইএমএস) এ যেতে বলা হয়। কারণ ইয়েল্লাম্মা রক্তস্বল্পতায় ভুগছিলেন। ডাক্তারের পরামর্শমত মানভি থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে রায়চুর ঘুরে আসেন। নিজ শহর মানভিতে ফিরে আসেন সকাল সাড়ে নয়টায়।
প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে স্থানীয় এমএলএ বালাতজি জানান, ‘বাস থেকে নামতে গিয়ে রাস্তায় পড়ে যান সে গর্ভবতী নারী। স্ত্রীর রক্তপাত দেখে হতভম্ব হয়ে পড়েন স্বামী রামান্না। তখনই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন ষাটোর্ধ সেই নারী ভিক্ষুক। দাত্রীর ভূমিকা পালন করা সে ভিক্ষুককে সহায়তার জন্য এগিয়ে এসেছিলেন সে এলাকার আরও কয়েকজন নারী।’
রামান্না ও ইয়েল্লাম্মার আনন্দের শেষ ছিলনা যখন দেখেন তাদের সন্তান একটি মেয়ে! সদ্যপ্রসূত বাচ্চা ও মাকে পরবর্তীতে মানভি সরকারী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ওদিকে ঘটনার পর ষাটোর্ধ নারী ভিক্ষুক ঘটনাস্থল থেকে চলে যান। স্থানীয় এমএলএ বালাতজির মতে, ‘সেসব মানুষ হয়তো ধনী নয় কিন্তু তাদের বড় হৃদয় আছে।’
সেই বড় হৃদয়ওয়ালা ভিক্ষুক নারীর কাছে কৃতজ্ঞ থাকবেন রামান্না ও ইয়েল্লাম্মা দম্পতি। কারণ তাদের বহুল কাঙ্খিত মেয়ে সন্তানের দুনিয়ায় আগমনটাতে সে যে দাত্রীর ভূমিকা রেখেছে। সূত্র: টাইমস্ অব ইন্ডিয়া