ব্যাংকের সিএসআরের ৫০ শতাংশ রাজশাহী-খুলনা অঞ্চলে ব্যয়ের নির্দেশ

আপডেট: জুন ২১, ২০২১, ১০:১২ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


সম্প্রতি করোনাভাইরাসের দ্রুত সংক্রমণশীল ভারতীয় ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট দেশের সীমান্তবর্তী জেলা বিশেষ করে রাজশাহী ও খুলনা এলাকায় ব্যাপক বিস্তার লাভ করেছে। প্রতিদিনই এ অঞ্চলে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যাও বাড়ছে।
এ অবস্থায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে ব্যাংকগুলোর করপোরেট সামাজিক দায়বদ্ধতার (সিএসআর) বিশেষ কার্যক্রম বাড়াতে নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। সিএসআর অর্থের ৫০ শতাংশ রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের সীমান্তবর্তী জেলাগুলোতে ব্যয় করতে বলা হয়েছে।
সোমবার (২১ জুন) বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি (বিআরপিডি) বিভাগ এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করে সকল ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী বরাবর পাঠানো হয়েছে।
২০২০ সালে ব্যাংকগুলো যে মুনাফা করেছে, তার এক শতাংশ করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য খরচ করতে হবে। ব্যাংকের সামাজিক দায়বদ্ধতার (সিএসআর) আওতায় এ অর্থ ব্যয় করা যাবে।
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নতুন নির্দেশনায় বলা হয়, সম্প্রতি করোনাভাইরাসের দ্রুত সংক্রমণশীল ভারতীয় ধরন দেশের সীমান্তবর্তী জেলা বিশেষত রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের আওতাধীন জেলাগুলোতে ছড়িয়ে পড়ছে। উক্ত অঞ্চলের দরিদ্রদের মধ্যে কোভিড-১৯ সংক্রমণ বাড়ছে মর্মে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম হতে জানা যাচ্ছে। তাছাড়া বিভিন্ন ব্যাংক হতে জানা গেছে, তারা নিজেদের সক্ষমতা ব্যবহার করে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় বিশেষ সিএসআর কার্যক্রম পরিচালনা করতে আগ্রহী। এ প্রেক্ষাপটে নি¤œবর্ণিত নির্দেশনা প্রদান করা হলো-
>> বিশেষ সিএসআর খাতে বরাদ্দের ৫০ শতাংশ রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের আওতাধীন জেলাসমূহে ব্যয় করতে হবে এবং অবশিষ্ট ৫০ শতাংশ বিআরপিডি সার্কুলার নং-০৯/২০২১-এর অনুচ্ছেদ নং-৫-এ বর্ণিত নির্দেশনা অনুযায়ী অন্যান্য সিটি করপোরেশন/জেলা/উপজেলা/ইউনিয়ন পর্যায়ে ব্যয় করতে হবে। ইতোমধ্যে বিশেষ সিএসআর খাতে বরাদ্দের ৫০ শতাংশের বেশি অর্থ রাজশাহী ও খুলনা অঞ্চলের বাইরে ব্যয় করা হয়ে থাকলে অবশিষ্ট সম্পূর্ণ অর্থ রাজশাহী ও খুলনা অঞ্চলে ব্যয় করতে হবে।
>> বিশেষ সিএসআর কার্যক্রম সম্পাদনের সুবিধার্থে জেলা প্রশাসক/এনজিও/এমএফআইয়ের পাশাপাশি ব্যাংকসমূহ নিজস্ব ব্যবস্থাপনায়ও বিশেষ সিএসআর কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবে। নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় বিশেষ সিএসআর কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রেও পৃথক হিসাব সংরক্ষণ করতে হবে।
>> সিএসআর খাতে বরাদ্দকৃত অতিরিক্ত অর্থ ১৬ আগস্ট ২০২১ তারিখের মধ্যে বিআরপিডি সার্কুলার নং-০৯/২০২১-এর অনুচ্ছেদ নং-৪-এ বর্ণিত ক্ষেত্রে সিএসআর হিসেবে ব্যয় করতে হবে এবং বিশেষ সিএসআর সংক্রান্ত কার্যক্রম সম্পন্ন করে এ সংক্রান্ত বাস্তবায়ন প্রতিবেদন আগামী ৩১ আগস্টের মধ্যে মহাব্যবস্থাপক, সাসটেইনেবল ফাইন্যান্স ডিপার্টমেন্ট, বাংলাদেশ ব্যাংক বরাবর দাখিল করতে হবে এবং উল্লিখিত নির্দেশনা ব্যতীত বিআরপিডি সার্কুলার নং-০৯/২০২১-এর অন্যান্য নির্দেশনা অপরিবর্তিত থাকবে।
এ নির্দেশনা অবিলম্বে কার্যকর হবে এবং ব্যাংক কোম্পানি আইন, ১৯৯১ এর ৪৫ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ নির্দেশনা জারি করা হয়েছে বলে সার্কুলারে উল্লেখ করা হয়েছে।
তথ্যসূত্র: জাগোনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ