ব্যাঙ্গালুরুর উইকেটই পরিবর্তন করে দিচ্ছে ভারত!

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১৭, ১২:১৩ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



পুনে টেস্টে উইকেট তৈরি করা হয়েছিল অশ্বিন আর জাদেজার জন্য; কিন্তু সেই উইকেটই বুমেরাং হয়ে গেলো ভারতের জন্য। সেই উইকেটে রাজত্ব করলেন অস্ট্রেলিয়ান স্পিনার ও’কেফি। দুই ম্যাচে ১২ উইকেট নিয়ে একাই ভারতকে বিধ্বস্ত করেছেন তিনি।
ব্যাঙ্গালুরুতে দ্বিতীয় টেস্ট শুরু হওয়ার আগে উইকেট নিয়ে চিন্তা-ভাবনায় বসে গেছে ভারতীয় ক্রিকেট কর্মকর্তারা। ব্যাঙ্গালুরুর এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামের উইকেট কেমন হবে, আবারও কী স্পিন ট্র্যাক তৈরি করা হবে নাকি পেস উইকেট বানানো হবে, এসব নিয়েই যত জল্পনা-কল্পনা।
এক শ্রীরাম অস্ট্রেলিয়াকে তাদের ভারত সফরের শুরুতেই এনে দিয়েছে অভাবনীয় সাফল্য। আর এক শ্রীরাম ভারতকে এই সিরিজে ফিরে আসার লড়াইয়ে সাহায্য করতে এগিয়ে এলেন। প্রথমজন অস্ট্রেলিয়ার স্পিন বোলিং কোচ শ্রী ধরণ শ্রীরাম। অন্যজন ব্যাঙ্গালুরুর চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামের পিচ কিউরেটর কে শ্রীরাম। যিনি ৪ মার্চ থেকে শুরু ভারত-অস্ট্রেলিয়া দ্বিতীয় টেস্টের জন্য বাইশ গজের মঞ্চ সাজানোর দায়িত্বে রয়েছেন।
ব্যাঙ্গালুরুর উইকেট কেমন হবে, যার উত্তর রয়েছে এই শ্রীরামের কাছেই। চিন্নাস্বামীর পিচ কিউরেটর ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে বললেন, ‘বেঙ্গালুরুর উইকেটে যেমন হয়, তেমনই হবে। হার্ড, বাউন্সে ভরা। পুণের মতো তিন দিনে টেস্ট শেষ হবে বলে মনে হয় না। পাঁচ দিনের খেলার কথা ভেবেই করা হচ্ছে এই উইকেট।’
পুণে টেস্ট শুরুর আগে সেখানকার স্থানীয় পিচ কিউরেটর পা-ুরঙ্গ সালগাওকরও কিন্তু একই কথা বলেছিলেন। এরপর সেখানে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের দুই কিউরেটর গিয়ে সব কিছু পাল্টে দেন বলে অভিযোগ উঠেছিল। যার ফল, পৌনে তিন দিনে ভারতের চরম বিপর্যয়। এবার তা হবে না বলেই জানাচ্ছেন বেঙ্গালুরুর শ্রীরাম।
পুনের পিচ কিউরেটর আবার নিজের সাফাই গেয়ে এবং কোহলিদের টার্নিং উইকেট না দেয়ার পক্ষে সওয়াল করলেন, ‘আামাদের ছেলেরা স্পোর্টিং উইকেটেই ভাল খেলবে। তাই ওদের স্পোর্টিং উইকেটই দেওয়া উচিত। এই দলকে আর কখনও যেন টার্নিং উইকেট দেওয়ার ভুল না করা হয়। রাতারাতি টার্নিং উইকেট বানিয়ে দিয়ে কী হল দেখলেন তো। আর বেঙ্গালুরুর পিচকেও যদি এ ভাবে টার্নার বানাতে যাওয়া হয়, তা হলে ফের ধাক্কা খেতে হবে।’
এম চিন্নাস্বামীর উইকেট দেখতে ইতিমধ্যেই বিসিসিআইর প্রধান কিউরেটর দলজিৎ সিংহ চলে ব্যাঙ্গালুরু চলে গিয়েছেন। এখানেও তার জাদু চলবে না তো পিচের উপর? শুনেই খেপে গেলেন তিনি, ‘খারাপ খেলল আমাদের ক্রিকেটাররা আর দোষ হয়ে গেল আমার? আমিই যেন পিচের সর্বনাশ করে দিয়েছি। পুণের উইকেট যদি খুব খারাপই হয়, তাহলে একটা দল রীতিমতো দাপট দেখিয়ে জিতল কীভাবে?’
অস্ট্রেলিয়ার কোচ ড্যারেন লেম্যান যদিও ব্যাঙ্গালুরুর উইকেট নিয়ে দুশ্চিন্তায় নেই বলে জানিয়ে দিয়েছেন। প্রথম টেস্টে দাপুটে জয়ের পরে নিজ দেশের সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘দ্বিতীয় টেস্টে আমাদের কেমন উইকেট দেওয়া হবে, তা নিয়ে ভাবছি না। এমন ঘূর্ণি উইকেটে যদি আমরা ভারতকে হারাতে পারি, তাহলে অন্য যে কোনও উইকেটেই পারব। ব্যাঙ্গালুরুর উইকেট সাধারণত যেমন হয়, তা যদি থাকে, তা হলে আমাদের ব্যাটসম্যান আর পেসাররা ম্যাচ জেতাবে।’ জাগো নিউজ