ব্রিটেনের প্রথম পুরুষ হিসাবে ‘মা’ হলেন এই যুবক

আপডেট: জুলাই ১০, ২০১৭, ১২:৩১ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


বৈজ্ঞানিক কয়েকটি পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে একজন পুরুষও জন্ম দিতে পারেন সন্তানের। এই বিষয় নিয়েই ১৯৯৪ সালে কমেডির মোড়কে তৈরি হয়েছিল একটি ইংরাজি ছবি। ছবির নাম ‘জুনিয়র’। বড়পর্দায় বাচ্চার জন্ম দিয়েছিলেন আর্নল্ড সোয়ার্জনেগার। সেইসময়ে দাঁড়িয়ে পুরুষের গর্ভধারণ করাটা খানিক অস্বাভাবিক হলেও মেডিক্যাল সায়েন্সের দ্বারা এখন যে তা সত্যিই বাস্তবে সম্ভব তা প্রমাণ হয়ে গেল আরও একবার। ব্রিটেনের প্রথম পুরুষ হিসাবে সন্তান প্রসব করলেন হেডেন ক্রস নামের এক ব্যক্তি।
২১ বছর বয়সে গর্ভধারণ করেন ব্রিটেনবাসী হেডেন। লড়াইটা খুব একটা সহজ ছিল না হেডেনের। নারী হিসাবে জন্মগ্রহণ করলেও রূপান্তরকামী ছিলেন হেডেন। এরপর বেশ কিছু সার্জারির মাধ্যমে তিন বছর আগেই আইনতভাবে পুরুষের স্বীকৃতি পান। এরপরই সন্তান প্রসবের পরিকল্পনা করে ফেলেন হেডেন ক্রস। বিদেশের এক সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, ফেসবুকের মাধ্যমে তাঁর পরিচয় হয় এক ব্যক্তির সঙ্গে। যিনি স্পার্ম ডোনেট করেন হেডেনকে। ব্রিটেনে এই ঘটনা আগে কোনদিনই ঘটেনি। প্রথম মেল প্রেগনেন্সি কেস হিসাবে ব্রিটেনের ইতিহাসে নাম লেখা রইল তাঁর। এবছরের শুরুর দিকে নিজের অন্তসত্ত্বা হওয়ার খবর নিজেই প্রকাশ্যে এনেছিলেন হেডেন। সম্প্রতি তাঁর পরিবারের তরফ থেকে জানানও হয়, একটি ফুটফুটে কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন হেডেন। মেয়ের নাম রেখেছেন ট্রিনিটি লেই। জন্ম শংসাপত্রে মা হিসাবেই রয়েছে হেডেন ক্রসের নাম, তবে উল্লেখ নেই বাবার নামের। আপাতত সন্তান ও হেডেন দুজনেই সুস্থ আছেন বলে জানান হেডেনের পরিবার।
রিপোর্ট অনুযায়ী নিজের ডিম্বানু সংরক্ষণ করতে চেয়েছিলেন তিনি, যাতে পরবর্তীকালে আবারও সন্তান ধারণ করতে পারেন, কিন্তু এই সিদ্ধান্ত মেনে নেননি মেডিক্যাল টিমের সদস্যরা। তবে অন্তসত্ত্বা হওয়ার কারণে লিঙ্গ পরিবর্তনের যে প্রক্রিয়া তিনি বন্ধ করে দিয়েছিলেন তা আবার চালু করতে চান হেডেন। ব্রিটেনে তিনিই প্রথম হলেও বিশ্বের প্রথম অন্তঃসত্ত্বা পুরুষ হলেন আমেরিকার থমাস বেটি। আজ থেকে দশ বছর আগে কৃত্রিম প্রজনন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সন্তান প্রসব করেছিলেন থমাস। সেক্ষেত্রেও কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন তিনি। এরপর স্পার্ম ডোনারের সহায়তায় পরপর তিন সন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন আমেরিকাবাসী থমাস।
তথ্যসূত্র: আজকাল

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ