বড়াইগ্রামে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল স্কুলছাত্রী

আপডেট: অক্টোবর ১৪, ২০১৬, ১১:৪৭ অপরাহ্ণ

বড়াইগ্রাম প্রতিনিধি
বড়াইগ্রাম উপজেলার নগর ইউপি চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপে ইউনিয়নের মল্লিকপুর গ্রামে বৃষ্টি খাতুন (১৩) নামে এক স্কুলছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ হয়েছে। বৃষ্টি ওই গ্রামের সাইদুর রহমানের মেয়ে এবং বড়াইগ্রাম বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী।
উপজলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রাশেদা পারভীন জানান, গতকাল শুক্রবার মল্লিকপুর গ্রামে বাল্যবিয়ে হচ্ছে এমন খবর পেয়ে তিনি নগর ইউপি চেয়ারম্যান নীলুফার ইয়াসমিন ডালুকে অবহিত করে বিয়ে বন্ধের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করেন। পরে নগর ইউপি চেয়ারম্যান তাৎক্ষণিক লোক পাঠিয়ে বিয়ে বন্ধের নির্দেশ দেন। এরপরেও তারা বিয়ের আয়োজন করতে থাকলে থানা থেকে পুলিশ পাঠিয়ে তাদেরকে আটকের উদ্যোগ নেয়া হয়। এ অবস্থায় বৃষ্টির বাবা সাইদুর রহমান বিয়ে বন্ধ করে দেন।
ইউপি চেয়ারম্যান নীলুফার ইয়াসমিন ডালু বলেন, আমি নারী তাই বাল্যবিয়ের কুফল সম্পর্কে খুব ভালো বুঝি। আমার ইউনিয়নে কোনো প্রকার বাল্যবিয়ে বা মেয়েদের যৌন হয়রানি বরদাস্ত করা হবে না। এ কাজে আমি স্থানীয় প্রশাসন ও সংবাদিকর্মীসহ সকলের সহযোগিতা চাই।