বড়াইগ্রামে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ অমান্য করে ইউপি’কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণের অভিযোগ

আপডেট: জুলাই ৩, ২০১৭, ১২:৫৯ পূর্বাহ্ণ

নাটোর প্রতিনিধি


নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার চাঁন্দাই ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ কাজে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় থেকে স্থগিতাদেশ দিলেও তা মানছে না সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার। এতে সাধারণ মানুষের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা যায়, স্থান নিয়ে জটিলতার কারণে গত ২১ জুন মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব ড. সৈয়দা নওশীন পর্ণিনী স্বাক্ষরিত পরিপত্রে চান্দাই ইউপি কমপ্øেক্স ভবন নির্মাণ কাজ স্থগিত করা হয়েছে। পরিপত্রে বর্তমান স্থানের পরিবর্তে কোন স্থানে চান্দাই ইউপি কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ করা অধিকতর যৌক্তিক হবে এবং জনগণের দাবি পূরণ হবে তা সরেজমিনে পরিদর্শনপূর্বক মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার জন্য নাটোর জেলা প্রশাসক শাহীনা খাতুনকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এর আগে গত ২৭ এপ্রিল সাংসদ অধ্যাপক আবদুল কুদ্দুস চান্দাই বাজারে ৭৪ লাখ ৯২ হাজার ৬৮৬ টাকা ব্যায় বরাদ্দে নতুন ইউপি কমপ্লেক্স ভবনের নির্মাণ কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। বনপাড়ার মেসার্স মিম কনস্ট্রাকশনের স্বত্ত্বাধিকারী ঠিকাদার ফজলুর রহমান তারেক এ ভবন নির্মাণ কাজ করছেন। কিন্তু মন্ত্রণালয়ের এ স্থগিতাদেশ দেয়ার পরও তা না মেনে তিনি কাজ অব্যাহত রেখেছেন বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে স্থানীয়দের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। এ ব্যাপারে গতকাল রোববার ঠিকাদার ফজলুর রহমান তারেক মোবাইলে জানান, আমি মন্ত্রণালয়ের কোন লিখিত কাগজপত্র পাইনি, তাই কাজ করছি।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইশরাত ফারজানা জানান, মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে চান্দাই ইউপি কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ পরবর্তী আদেশ না পাওয়া পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে। ডিসি স্যারের নির্দেশে আমি বিষয়টি সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার ও ইউপি চেয়ারম্যানকে অবহিত করেছি।
উল্লেখ্য, ১৯৬৪ সালে দাসগ্রামে ১০ একর ২৯ শতক জমি নিয়ে চান্দাই ইউনিয়ন পরিষদের কার্যালয় স্থাপিত হয়। কিন্তু গত চার বছর ধরে দাসগ্রামের পরিবর্তে চান্দাইয়ে নতুন ভবন নির্মাণের উদ্যোগ নিলে দাসগ্রামসহ কয়েকটি গ্রামের মানুষ আন্দোলনে নামে। সম্প্রতি ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু হলে এলাকাবাসীর আবেদনের ভিত্তিতে ভবন নির্মাণ কাজে স্থগিতাদেশ দেয় মন্ত্রণালয়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ