বড়াইগ্রামে মহাসড়কে ডাকাতির ঘটনায় গ্রেফতার ১০, অস্ত্র উদ্ধার

আপডেট: মার্চ ২৪, ২০১৭, ১২:৩০ পূর্বাহ্ণ

বড়াইগ্রাম প্রতিনিধি



নাটোরের বড়াইগ্রামের মানিকপুর কলাবাগন এলাকায় বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কে বাস ও ট্রাকে গণডাকাতির ঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার ডাকাতি ও অস্ত্র আইনে পৃথক দুইটি মামলা হয়েছে। এর আগে ডাকাতির সঙ্গে জড়িতের অভিযোগে পৃথক অভিযানে ১০ যুবককে আটক এবং তাদের দেয়া তথ্যমতে দুইটি শর্টগান, একটি চাপাতি ও একটি হাসুয়া উদ্ধার করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হলেন উপজেলার বড়াইগ্রাম ইউনিয়নের রয়নাভরট গ্রামের আজগর আলীর ছেলে গোলাম হোসেন (৩৫), মকবেল হোসেনের ছেলে মাসুদ রানা (২৭) ও জহির উদ্দিনের ছেলে মিন্টু মিয়া (২৩), শ্রীরামপুর গ্রামের ফজেল হোসেনের ছেলে বাবু মিয়া (২৭), জোনাইল ইউনিয়নের সরাবাড়িয়া গ্রামের শহিদুল ইসলামের ছেলে শাকিল আহমেদ (২৮), আবদুর রহিমের ছেলে নাজমুল হোসেন, ইসরাফিল হোসেনের ছেলে সেকেন্দার আলী (৩০) ও সিরাজুল ইসলাম (২৪), বর্নী গ্রামের লোকমান সরকারের ছেলে রমজান আলী (২৮) এবং আসমান আলীর ছেলে ফারুক হোসেন (২৩)।
বড়াইগ্রাম থানার উপপরিদর্শক পার্থ বড়–য়া জানান, ডাকাতির সঙ্গে জড়িত সন্দেহে প্রথমে তিন যুবককে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের পর তারা ডাকাতির সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছে। পরে তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে অপর ৭ যুবককে আটক এবং দুইটি শর্টগান, একটি চাপাতি ও একটি হাসুয়া উদ্ধার করা হয়।
এ বিষয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহরিয়ার খান জানান, ডাকাতির ঘটনায় এসআই পার্থ বড়–য়া বাদী হয়ে অস্ত্র আইনে একটি এবং ক্ষতিগ্রস্ত ট্রাকচালক জয়দেব কুমার বাদী হয়ে একটি ডাকাতি মামলা দায়ের করেছেন। পরে আটকৃতদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।
গত সোমবার রাত ১২টার দিকে একদল ডাকাত মানিকপুর কলাবাগান এলাকায় বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কে একটি বিকল ট্রাক দিয়ে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে দুইটি ট্রাকে ডাকাতি করে। এসময় টহলপুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে তারা পালিয়ে যায়। পরে রাত ২টার দিকে পুনরায় ডাকাত দল একই স্থানে হানিফ পরিবহনের একটি বাসে ডাকাতি করে পালিয়ে যায়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ