বড়াইগ্রামে শিক্ষককে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙে দেয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন

আপডেট: নভেম্বর ২৬, ২০১৬, ১২:০৯ পূর্বাহ্ণ


নাটোর অফিস
নাটোরের বড়াইগ্রামে পাচবাড়ীয়া উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙে দেয়ার প্রতিবাদ ও দোষীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। গতকাল শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে বড়াইগ্রাম উপজেলার কয়েন বাজার এলাকায় ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।
মানববন্ধনে বক্তব্য দেন স্থানীয় আরাম আলী, জাহানারা বেগম প্রমুখ। অপরদিকে ওই প্রধান শিক্ষক রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালের ৫ম তলায় ৪২৮ নাম্বর কেবিনে যন্ত্রণায় কাতর হয়ে আছেন। দুই হাত এবং পা প্লাস্টার করা করা। শরীরে প্রচ- জ্বর এবং শরীরের বিভিন্ন জায়গায় রক্ত জমাটে অসহনীয় যন্ত্রণায় কাতর তিনি। এদিকে কয়েন বাজার এলাকায় মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে ওই শিক্ষকের ওপর এরুপ মির্মম হামলা চালানোর নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতার ও বিচার দাবি করেন।
পাচবাড়ীয়া উচ্চবিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে একই গ্রামের অধিবাসী এবং নগর ইউনিয়নের সদস্য বাচ্চু মিয়ার সঙ্গে প্রধান শিক্ষকের বিরোধ সৃষ্টি হয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত ২২ নভেম্বর সকালে প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমান নিজ বাড়ি থেকে স্কুলের যাওয়ার পথে বাচ্চু মেম্বার ও তার লোকজন মিজানুর রহমানকে লোহার রড ও লাঠিসোটা দিয়ে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙে দেয়। বর্তমানে প্রধান শিক্ষক ঢাকার ল্যাবএইড  হাসপাতালে চিকিৎসাধিন আছেন। এ ঘটনার পরদিন ২৩ নভেম্বর আহত শিক্ষক মিজানুর রহমানের নাতি মোহাম্মদ মিলন বাদী হয়ে স্থানীয় ইউপি মেম্বার বাচ্চু মিয়াসহ নয়জনের নাম উল্লেখ করে বড়াইগ্রাম থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পুলিশ নাজিম উদ্দিন নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করলেও প্রধান আসামি বাচ্চু মিয়াসহ অন্যদের গ্রেফতার করতে পারে নি।
এ বিষয়ে বড়াইগ্রাম থানার ওসি শাহরিয়ার খান বলেন, অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তবে তারা পলাতক থাকায় গ্রেফতার করা যাচ্ছে না।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ