ভারতে এক কিশোরের ২০ সেন্টিমিটার ‘লেজ’

আপডেট: অক্টোবর ৮, ২০১৬, ১১:৪৯ অপরাহ্ণ

11. Lej

সোনার দেশ ডেস্ক
এক কিশোরের মেরুদ-ের নিচ থেকে গজানো ২০ সেন্টিমিটার লম্বা একটি লেজ অপসারণের উদ্দেশ্যে অস্ত্রোপচার করা হয়েছে।
বর্তমানে ১৮ বছর বয়সী ওই কিশোরটির ১৪তম জন্মদিনের পর থেকেই লেজটি গজানো শুরু হয় বলে জানিয়েছে বিবিসি।
লোকনিন্দার ভয়ে ভারতের মহারাষ্ট্র রাজ্যের নাগপুরের ওই কিশোর ও তার পরিবার বিষয়টি গোপন করে। কিন্তু পরে লুকানোর পক্ষে ‘লেজটি’ বেশি বড় হয়ে যাওয়ায় ও এর ভিতরে হাড় গজাতে থাকায় তারা একজন চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কিশোরটির মা বলেন, “শরীরের বাইরের দিকে লেজ গজানো একটি সমস্যা হয়ে উঠেছিল। প্রতিবার পোশাক পরিবর্তনের সময় লেজটি তুলে ধরতে হতো ওর।
“এটি ওর জন্য বেশ বিরক্তিকর ও বেদনাদায়ক হয়ে উঠেছিল, তাই আমি ওকে হাসপাতালে নিয়ে এসেছি।”
চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, গর্ভাবস্থায় থাকার সময়ই সম্ভবত মেরুদ-ের বিকৃতির কারণে লেজটির উৎপত্তি হয়েছিল, কিন্তু কিশোরটির বয়স বাড়ার পর লেজটি দেহের বাইরে বের হয়ে আসে বলে মনে হচ্ছে।
ডা. প্রমোদ গিরি বলেন, “লেজটি বড় হওয়ার পর ছেলেটির পেছনদিকে চাপ দিতে শুরু করে। শারীরিক ও মানসিকভাবে এটি তার জন্য বিরক্তিকর ছিল।”
মানব শরীরে গাজানো ‘লেজ’ অপসারণ একটি জটিল প্রক্রিয়া। একজন অভিজ্ঞ নিউরোসার্জনের তত্ত্বাবধানে এই অস্ত্রোপচারটি করতে হয়।
অস্ত্রোপচারের পর ওই কিশোরককে বেশ কয়েকদিন হাসপাতালে থাকতে হবে। তারপর লেজহীন অবস্থা নিশ্চিত হওয়ার পর তাকে বাসায় যাওয়ার অনুমতি দেয়া হবে।
মানুষের শরীরে ‘লেজ’ গজানোর ঘটনা বেশ বিরল। এ পর্যন্ত মানব শরীরে গজানো লেজগুলোর মধ্যে এটিই সবচেয়ে বড় বলে ধারণা করা হচ্ছে।- বিডিনিউজ