ভারি বৃষ্টির আভাস নিয়ে এল বর্ষা

আপডেট: জুন ১৫, ২০২২, ২:২৭ অপরাহ্ণ


সোনার দেশ ডেস্ক :


প্রচণ্ড গরমে তাপদগ্ধ মানুষ উন্মুখ হয়ে আছে বর্ষার জন্য; গ্রীষ্মের খরতাপে প্রলেপ দিতে আষাঢ়ের প্রথম দিনে মিলেছে বৃষ্টির আভাস, দেশের তিন বিভাগে মাঝারি থেকে অতি ভারি বর্ষণ হতে পারে জানিয়েছেন আবহাওয়া অধিদপ্তর।

প্রকৃতি ও জনজীবনে প্রাণের স্পন্দন জাগিয়ে তোলা দুই মাসের বর্ষা ঋতুর প্রথম দিন বুধবার অধিদপ্তর আভাস দিয়েছে, আগামী কয়েকদিন বৃষ্টি হবে, আর এবার আষাঢ়-শ্রাবণে ‘স্বাভাবিক’ বৃষ্টি ঝরবে।

আবহাওয়াবিদ মনোয়ার হোসেন জানান, বুধবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় রংপুরের ডিমলায় ১০২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

দিনের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, সকাল থেকেই রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট অঞ্চলে মাঝারি থেকে ভারি এবং কোথাও কোথাও অতি ভারি বর্ষণ হতে পারে। এ ছাড়া মাঝারি থেকে ভারি বৃষ্টি হতে পারে ঢাকা, সিলেট চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল বিভাগের কিছু কিছু জায়গায়।

কুমিল্লায় সকাল ৯টার দিকে মুষলধারে বৃষ্টি সিটি করপোরেশনের ভোটারদের কিছুটা ভুগিয়েছে। বৃষ্টি থেকে বাঁচতে ভোটার লাইন ভেঙে তাদের আশ্রয় নিতে হয়েছে কেন্দ্রের বারান্দায়।
মনোয়ার হোসেন বলেন, “দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু দেশের উপর মোটামুটি সক্রিয়। উত্তরাংশে বেশ সক্রিয় থাকায় আগামী কয়েকদিন বৃষ্টির প্রবণতা বাড়বে।“

দেশের কয়েক এলাকায় তাপপ্রবাহ বিরাজ করছে জানিয়ে এই আবহাওয়াবিদ বলেন, এ মৌসুমে মেঘলা আবহাওয়ায় রাজধানীসহ দেশে অনেক এলাকাতেই ভ্যাপসা গরম পড়েছে। বৃষ্টিতে দুয়েকদিনের মধ্যে তা কেটে যাবে বলে আশা করা যায়।
যশোর, কুষ্টিয়া ও পাবনা অঞ্চলে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে গেছে মে মাসে। জুনে দেশে বিচ্ছিন্নভাবে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ থাকতে পারে।

এ মাসে ‘স্বাভাবিক’ বৃষ্টির আভাস দিয়ে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, জুন মাসে ঢাকা বিভাগে গড়ে ৩৫৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত স্বাভাবিক। এবার বৃষ্টির স্থায়ীত্বকাল হতে পারে ১৫ থেকে ২০ দিন, ওই সময় ৩৪০-৩৭৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হতে পারে।

দেশের অন্য বিভাগগুলোর মধ্যে ময়মনসিংহে ১৮-২২ দিন, চট্টগ্রামে ১৫-২০, সিলেটে ২০-২৬, রাজশাহীতে ১৫-২০, রংপুরে ১৫-২০, খুলনায় ১২-১৮এবং বরিশাল বিভাগে ১৫-২০ দিন বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনার খবর দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

ওই দিনগুলোর চট্টগ্রামে ৫৩০-৬৪৫ মিলিমিটার, সিলেটে ৫৬০-৬৮০ মিলিমিটার, রাজশাহীতে ২৯০-৩২০ মিলিমিটার, রংপুরে ৩৭০-৪১০ মিলিমিটার, খুলনায় ২৮০-৩১০ মিলিমিটার এবং বরিশালে ৪৬০-৫১০ মিলিমিটার বৃষ্টি হতে পারে।

জুন মাসের আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, এ মাসে বঙ্গোপসাগরে একটি থেকে দুটি লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে। এর মধ্যে একটি মৌসুমি নিম্নচাপে পরিণত হতে পারে।

ভারি বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে চলতি মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে কুড়িগ্রামে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। দেশের উত্তরাঞ্চল, উত্তর পূর্বাঞ্চল, উত্তর মধ্যাঞ্চল ও দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলের কিছু জায়গাতেও স্বল্প মেয়াদী ‘বন্যা’ পরিস্থিতির দেখা দিতে পারে বলে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে।- বিডিনিউজ