ভাষা শহীদ জাদুঘর নির্মাণে হাইকোর্টের নির্দেশ

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ২০, ২০১৭, ১২:১৩ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাশে ভাষাশহীদদের জন্য জাদুঘর তৈরি করতে আদালতের নির্দেশ ছয় মাসের মধ্যে বাস্তবায়ন করতে বলেছেন হাইকোর্ট।
একইসঙ্গে ভাষা সৈনিকদের প্রকৃত তালিকা প্রস্তুত করতেও নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
রোববার বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি আবু তাহের মোহাম্মদ সাইফুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই নির্দেশ দেন। আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ।
২০১০ সালের ২৫ আগস্ট হাইকোর্ট এক রায়ে কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে পবিত্রতা ও স্মৃতি রক্ষায় ৮ দফা নিদের্শনা দিয়ে রায় দিয়েছিলেন। যার মধ্যে ছিলো-কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারের পাশে লাইব্রেরিসহ ভাষা জাদুঘর নির্মাণ, ভাষা সৈনিকদের রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ এবং শহিদ মিনারের পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা রক্ষায় লোকবল নিয়োগ।
এই নির্দেশনার কিছু কিছু বাস্তবায়ন করেছে সরকার। তবে অনেকগুলো বাস্তবায়ন না করার অভিযোগ এনে হাইকোর্টে আবেদন করেন রিটকারী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের সভাপতি অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ।
রোববার শুনানি শেষে হাইকোর্ট রায়ের যেসব নির্দেশনা বাস্তবায়ন হয়নি তা বাস্তবায়ন করে ৬ মাসের মধ্যে আদালত এফিডেভিট দাখিলের জন্য সংস্কৃতি সচিবকে নির্দেশ দেন।
মনজিল মোরসেদ বলেন, ‘কিছু নির্দেশনা আংশিক বাস্তবায়ন হয়েছে। কিছু নির্দেশনা একেবারেই বাস্তবায়ন হয়নি। নির্দেশনা বাস্তবায়ন না হওয়ায় এর আগে ২০১২ সালে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনা হয়েছিল। তখন সংস্কৃতি সচিব আদালতে হাজির হয়ে এর ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন।’
তিনি আরো বলেন, ‘২০১০ সালে দেওয়া রায়ের বেশকিছু নির্দেশনা বাস্তবায়ন হয়নি। কোনোটি আবার আংশিক বাস্তবায়ন হয়েছে। রায়ের সম্পূর্ণ বাস্তবায়নের আরজি জানানো হয় সম্পূরক আবেদনে।’- বাংলানিউজ