‘ভিভা ফিদেল’: কিউবায় নয়দিনের রাষ্ট্রীয় শোক শুরু

আপডেট: নভেম্বর ২৭, ২০১৬, ১০:৪৩ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



কিংবদন্তি বিপ্লবী নেতা ও সাবেক প্রেসিডেন্ট ফিদেল ক্যাস্ত্রোর মৃত্যুতে কিউবায় নয়দিনের রাষ্ট্রীয় শোক শুরু হয়েছে।
কয়েক প্রজন্ম ধরে ফিদেল কমিউনিস্ট রাষ্ট্র কিউবার রাজনীতির কেন্দ্রবিন্দু ও বিশ্ব রাজনীতির অন্যতম প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব ছিলেন। শুক্রবার কিউবার প্রেসিডেন্ট ও ফিদেলের ছোট ভাই রাউল ক্যাস্ত্রো তার মৃত্যুর কথা ঘোষণা করেন।
তারপর থেকে দেশজুড়ে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত আছে, অ্যালকোহল বিক্রি বন্ধ রাখা হয়েছে এবং সব ধরনের শো ও কনসার্ট বাতিল করা হয়েছে। শুক্রবার কিউবার স্থানীয় সময় রাত ১০টা ২৯ মিনিটে ফিদেলের মৃত্যু হয় বলে দেশবাসীকে জানান রাউল। তবে মৃত্যুর কোনো কারণ উল্লেখ করেননি তিনি।
বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, ফিদেল ক্যাস্ত্রোর শেষ ইচ্ছানুযায়ী শনিবার তার মরদেহ পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে। আগামী ৪ ডিসেম্বর রাষ্ট্রীয় শেষকৃত্েযর আগ পর্যন্ত মরদেহের ছাই কিউবার বিভিন্ন জায়গায় নিয়ে যাওয়া হবে।
৯০ বছর বয়সে বিদায় নেওয়া এই নেতার সম্মানে রাজধানী হাভানার রেভ্যুলেশন স্কয়ারে এবং পূর্বাঞ্চলীয় শহর সান্তিয়াগোতে বিশাল সমাবেশ করার পরিকল্পনা করেছে দেশটির সরকার।
ফিদেলের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করতে কিউবার কমিউনিস্ট পার্টির মুখপত্র দৈনিক গ্রানমার শিরোনাম লালের বদলে এবং রিবেল ইয়ুথের শিরোনাম নীলের বদলে কালোতে ছাপানো হয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হাভানার রেভ্যুলেশন স্কয়ারে ফিদেল ক্যাস্ত্রোর স্মরণানুষ্ঠাণ হওয়ার কথা। এতে বিদেশি বিভিন্ন রাষ্ট্রের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা যোগ দিবেন বলে জানা গেছে।
যুগান্তর সৃষ্টিকারী এই বিপ্লবী নেতার জন্য ঘোষিত শোক চলাকালীন সামরিক বাহিনী বা পুলিশকে উচ্চ সতর্কাবস্থায় রাখা হয়নি। শনিবার হাভানা বিশ্ববিদ্যালয়ে শত শত শিক্ষার্থী জড়ো হয়ে কিউবার বিশাল পতাকা দুলিয়ে ‘ভিভা ফিদেল’, ‘ভিভা রাউল’ শ্লোগান দিচ্ছিল। ফিদেল এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন।
এই শিক্ষার্থীদের শ্লোগান ছাড়া হাভানার জনজীবন এদিন অনেকটাই স্বাভাবিক ছিল। শুধু ফিদেলের মৃত্যুর খবর আসার পর সবকিছু চুপচাপ ও শান্ত হয়ে পড়েছে।
রাজনীতির পর ক্যাস্ত্রোর প্রিয় ছিল বেসবল খেলা। নয়দিন ধরে রাষ্ট্রীয় শোক চলার সময় সব পর্যায়ের বেসবল খেলা বন্ধ থাকবে বলে ঘোষণা করেছে দেশটির বেসবল ফেডারেশন।
কিউবার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন, স্টুডেন্ট অ্যাসোসিয়েশন এবং ওমেন্স ফেডারেশন ফিদেলের স্মরণে ছোট কয়েকটি সভা করেছে। সবকিছু মিলিয়ে শোকের প্রথম দিনটি মূলত নেতার মৃত্যুজনিত প্রতিক্রিয়ার মধ্য দিয়েই পার হয়েছে।- বিডিনিউজ