‘ভুবন মাঝি’ উৎসর্গ করা হলো কালিকাপ্রসাদকে

আপডেট: মার্চ ৮, ২০১৭, ১২:১২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক



সদ্যমুক্তিপ্রাপ্ত মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক চলচ্চিত্র ‘ভুবন মাঝি’ উৎসর্গ করা হলো মঙ্গলবার দুর্ঘটনায় নিহত কলকাতার দোহার ব্যান্ডের সংগীতশিল্পী কালিকাপ্রসাদ ভট্টাচার্যকে। গ্লিটজকে তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন চলচ্চিত্রটির নির্মাতা ফাখরুল আরেফিন।
মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক চলচ্চিত্র ‘ভুবন মাঝি’র মধ্য দিয়ে সংগীত পরিচালনা শুরু করেছিলেন কালিকাপ্রসাদ ভট্টাচার্য। চলচ্চিত্রটিতে ব্যবহৃত ‘আমি তোমারই নাম গাই’ গানটি ইতিমধ্যেই মানুষের মুখে মুখে ফিরছে। গানটির কথা, সুর ও সংগীতায়োজন করেছিলেন কালিকাপ্রসাদ। ভুবন মাঝি চলচ্চিত্রের প্রিমিয়ারে গত ২ মার্চ চলচ্চিত্রটির অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে ঢাকায় এসেছিলেন তিনিও।
বসুন্ধরা স্টার সিনেপ্লেক্সে প্রিমিয়ার অনুষ্ঠানে গণমাধ্যমের সামনে দাঁড়িয়ে জানিয়েছিলেন বাংলাদেশ নিয়ে তার আবেগ অনুভূতির কথা। বলেছিলেন, “আমার দুটো সত্ত্বা, একটি ভারতবাসী আরেকটা বাঙালি। মুক্তিযুদ্ধকে আমরাও আমাদের অস্তিত্বের অংশ বলেই মনে করি। আমি জন্মগতভাবেও ৭১’এর সন্তান। আমার জন্ম ঠিক কলকাতায় নয়, আসামের শিলচরে। আসামে আমার বেড়ে ওঠা। জন্মের পর থেকে অনেকগুলো ঘটনা আমার অঞ্চলেও দেখেছি। ১৯৬১ তে আমার অঞ্চলেও ১১জন মারা গেছেন বাংলা ভাষার জন্য আন্দোলন করতে গিয়ে। এছবির মধ্য দিয়েই আমার সংগীত পরিচালনা শুরু। আমি বলতে গেলে গান লিখিও না। বাংলাদেশই আমাকে দিয়ে দুবার গান লেখালো। একবার শাহবাগ আন্দোলনের সময় প্রাণের তাগিদে গান লিখেছিলাম, আরেকটা এই ছবিতে। ভারতবর্ষের রিপ্রেজেন্টেশন যদি বলি, মুক্তিযুদ্ধেও ছিলাম আজকের ভুবনমাঝিতেও আছি।”
এই শিল্পীর আকস্মিক মৃত্যুতে দুই বাংলার সংস্কৃতি অঙ্গন শোকে ভাসছে। ‘ভুবন মাঝি’ নির্মাতাও শোকতপ্ত কণ্ঠে গ্লিটজকে বললেন, “কী বলবো বুঝতে পারছি না। এর কোনো প্রতিক্রিয়া হয়না। মনে হচ্ছে ভাই হারালাম। ‘ভুবন মাঝি’ তাকে উৎসর্গ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা। শিগগিরই এডিটিং করে সিনেমায় তার নাম বসানো হবে। আর আজ সকল প্রদর্শনীতে তার জন্য এক মিনিট নিরবতা পালন করা হবে।”
নির্মাতা জানান, সন্ধ্যায় কলকাতায় হাজির হচ্ছেন তিনি। এদিকে চলচ্চিত্রটির অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ও প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। তিনি বলেন, “ভুবন মাঝি-তে কিছুতেই গান গাইবো না আমি। তবু জোর করে গাওয়ানো হল। সে গান মানুষের পছন্দ হলো।”
পরম স্মৃতিচারণ করেন ঢাকার প্রিমিয়ারের উদ্দেশে তাদের দুজনের এক ফ্লাইটে আসার কথাও। বলেন, “যাত্রাপথে কত কথা হলো। কত গল্প। বললেন, ‘ঢাকা একদিনে ঠিক এনজয় করা যায় না। চল্ পহেলা বৈশাখে আসি এবার।’ দুই বাংলার গান নিয়ে কত কথা। আমার আবার শেখা। ভুবন মাঝির প্রিমিয়ার শেষে জল চিক চিক চোখে আমাদের দাঁড়িয়ে থাকা।”
কালিকাপ্রসাদ ভট্টাচার্য আসামের শিলচরের মানুষ। তার বড় হওয়া, সংগীত শিক্ষা- সেখানেই।  ১৯৯৯ সালে তিনি তার গানের দল দোহার গঠন করেন। তরুণ প্রজন্মের কাছে বাংলার লোকগানকে আরও জনপ্রিয় করে তুলতে প্রতিনিয়ত নীরিক্ষা ও গবেষণা করেছেন তিনি। ভিন্ন আঙ্গিকে-উপস্থাপনার বৈচিত্রে তার গাওয়া গান দুই বাংলাতেই সমান জনপ্রিয়তা পেয়েছে।
২০১৩ সালে শাহবাগের গণজাগরণ আন্দোলনকে কেন্দ্র করে তিনি লিখেছিলেন ‘শাহবাগ দিচ্ছে ডাক’ গানটি। ‘ভুবন মাঝি’র আগে ‘জাতিস্মর’, ‘মনের মানুষ’-এর মতো সিনেমার গানে কণ্ঠ দিয়েছেন তিনি।-বিডিনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ