ভেঙে পড়েছে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসাসেবা || ২১ চিকিৎসকের স্থলে কর্মরত সাতজন

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৭, ১:৩৯ পূর্বাহ্ণ

শিবগঞ্জ প্রতিনিধি


ভেঙে পড়েছে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লে¬ক্সের চিকিৎসা সেবা। এ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ২১ চিকিৎসকের পদ থাকলেও কর্মরত রয়েছেন মাত্র সাত জন। এর মধ্যে ডেপুটিশনে রয়েছেন দুই চিকিৎসক। সাতজন চিকিৎসক কর্মরত থাকলেও গতকাল সোমবার হাসপাতালটিতে উপস্থিত ছিলেন মাত্র পাঁচজন। এই চিকিৎসক সঙ্কটে হাসপাতালটিতে চিকিৎসা ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। চিকিৎসাবঞ্চিত হচ্ছেন কয়েক হাজার সেবাগ্রহিতা।
অভিযোগ রয়েছে, সরকারি বিধি উপেক্ষা করে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা নিজেদের ইচ্ছা অনুযায়ী দায়িত্ব পালন করে থাকেন। এ বিষয়ে হাসপাতালটির প্রধান ডা. সফিকুল ইসলামের ভাষ্য, নতুন যোগদানের কারণে এখনও কোনো কিছু বুঝে উঠতে পারি নি।
হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ৫০ শয্যা বিশিষ্ট শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সের জন্য ২১ জন এমবিবিএস ডাক্তারের পদ রয়েছে। তবে হাসপাতালটিতে কর্মরত রয়েছেন সাতজন চিকিৎসক। অন্য ১৪টি পদ রয়েছে শূন্য। তবে কর্মরত সাতজন চিকিৎসকের মধ্যে চক্ষু বিশেষজ্ঞ সার্জন ও এমবিবিএস ডাক্তার- এ দুই জন ডেপুটিশনে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কর্মরত রয়েছেন। ফলে চোখের চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন উপজেলার মানুষ।
এ বিষয়ে স্থানীয় সংবাদকর্মীরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লে¬ক্সে গেলে দেখা যায়, সেখানে বহির্বিভাগে মাত্র একজন চিকিৎসক এবং জরুরি বিভাগে একজন চিকিৎসক দায়িত্ব পালন করছেন। ২১ জন চিকিৎসকের স্থলে মাত্র সাতজন চিকিৎসক উপস্থিত থাকায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয় রোগি ও স্বজনদের মধ্যে।
এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সফিকুল ইসলাম বলেন, তিনিসহ ৬ জন চিকিৎসক উপস্থিত রয়েছেন। ১৪টি পদ রয়েছে শূন্য প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি ঊর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।