ভোলাহাটে আম বাগান পরিচর্যায় ব্যস্ত চাষিরা

আপডেট: জানুয়ারি ১৮, ২০২৩, ১:২২ অপরাহ্ণ


ভোলাহাট প্রতিনিধি :


চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাটে আম বাগান পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন আম চাষিরা। আমের রাজধানী খ্যাত চাঁপাইনবাবগঞ্জের সীমান্ত ঘেঁষা পশ্চিমের সবচেয়ে ছোট উপজেলা ভোলাহাট। আর এখানে উৎপাদিত হয় অত্র উপজেলার প্রধান অর্থকরী ফসল আম। যে আম নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন উপজেলার আম চাষিরা।

যদিও মুকুল আসতে এখনো মাসখানেক দেরি আছে। মাঘ মাস শেষে ফাল্গুনের শুরুতে গরম বাতাসে আসতে শুরু করবে মুকুল। তব্ওু বাড়তি ফলনের আশায় চাষিরা আগাম পরিচর্যায় ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন।

সরেজমিনে গিয়ে একাধিক আম চাষিরা জানিয়েছেন, আমরা বাড়তি ফলন ফলানোর জন্য এবং আমকে পোকা মুক্ত আর আমের রং ঠিক রাখতে আমরা কীটনাশকসহ ভিটামিন দিয়ে আমের গাছ স্প্রে করছি যেন ভালো মুকুল হয়। এরপূর্বে কয়েক মাস আগে আমরা গাছের গোড়ায় জৈব সারসহ সেচ দিয়েছি। উপজেলার আম চাষি তোফাজ্জল হক বলেন, আমরা গাছের আগাছা পরিষ্কার করে সার-ভিটামিন জাতীয় ঔষধ দিয়ে ছোট বড় সকল গাছের পরিচর্যা শুরু করেছি

। পাশাপাশি পোকা দমনে কীটনাশক দিয়ে স্প্রে করছি এতে পোকা যেমন দমন হবে তেমনি গাছে দেখা দিবে স্বাস্থ্যকর মুকুল। এতে করে ভালো ফলন হবে।
ভোলাহাটে যেসকল আম উৎপাদন হবে তারমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, হিমসাগর, ফজলি, ল²ণ ভোগ, আশ্বিনা, গোপালভোগ, আম্রপালি, কাটিমন, বারি-৪ সহ অর্ধশতাধিক জাতের আম চাষ করা হয়ে থাকে। গতবছর আমের দাম ভালো থাকায় এবছর আম চাষে আগ্রহ বেড়েছে কয়েকগুণ। তারা কৃষি অধিদপ্তরের পরামর্শ নিয়ে আম চাষ করে থাকেন।

ভোলাহাট উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ সুলতান আলী বলেন, আমের আবাদ ৩৬৬২ হেক্টর। যা গতবারের চেয়ে একটু বেশি। তিনি আরও জানান, আবহাওয়া অনুক‚লে থাকলে ভালো ফলন হওয়ার সম্ভাবনা আছে। আমাদের পক্ষ থেকে সকল চাষিকে পরামর্শ এবং সহযোগিতা করে থাকি বলেও জানি তিনি।