ভোলাহাটে এনজিও’র নিবার্হী পরিচালকে হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২২, ৯:৫৩ অপরাহ্ণ

ভোলাহাট প্রতিনিধি:


ভোলাহাটে স্থানীয় এনজিও মাইডসের নিবার্হী পরিচালক বেলাল উদ্দিনকে সংস্থার কিছু কর্মী অর্থ আত্মসাত করে পরিকল্পিত ভাবে হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে বিচারের মাধ্যমে দায়ি ব্যক্তিদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন করা হয়।

শনিবার (১২ ফেব্রুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৩ টার দিকে আধাঘণ্টা ভোলাহাট প্রেসক্লাব গেট সম্মুখে স্ত্রী চার মেয়ে আত্মীয়—স্বজন ও এলাকাবাসির আয়োজনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বেলাল উদ্দিনের স্ত্রীসহ চার মেয়ে কাঁন্নায় ভেঙে পড়েন।

এ সময় তাঁর স্ত্রী সেকিনা বেগম বলেন, এনজিওর নিবার্হী পরিচালক বেলাল উদ্দিনের সাথে প্রতারণা করে এনজিও কর্মী এসরাইল, হেলাল, হাসান, কারিম, মাইনুল, আব্দুর রহমান ডাকু, মিজানসহ অন্যান্যরা এনজিও’র কোটি কোটি টাকা লুট করে নেয়।

টাকা আত্মসাত করে নিজেদের নামে জমি ক্রয়, আলিশান বাড়ী নির্মাণ ও অন্য নামে এনজিও তৈরি করেছে। তাঁরা নিজেদের দায় নিবার্হী পরিচালকের উপর চাপিয়ে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভাবে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে আসছিল। দীর্ঘদিনের অর্থ আত্মসাতের বিষয়ে স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিদের সমন্বয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

বেলার উদ্দিনের বড় মেয়ে মাহফুজা বলেন, আমার পিতার মৃত্যু হওয়ায় আমরা মা ও আমরা ছোট চার বোন এতিম হয়ে গেলাম। আমাদের দেখাশুনার কেউ থাকলো না। আমার পিতার হত্যাকারীদের ফাঁসি চাই।

বৃহস্পতিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে তদন্ত কমিটি তদন্তের জন্য উজেলার আদাতলার মাইডসের প্রধান কার্যালয়ে বসেন। তদন্ত চলাকালে দায়ী কর্মীরা নির্বাহী পরিচালক বেলাল উদ্দিনের উপর মারমুখী হয়। এ সময় তদন্ত কমিটি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসেন। তাদের হুমকিতে আত্মমর্যাদার ক্ষুন্ন হওয়ায় ১১ ফেব্রুয়ারি ভোরে উপজেলার পঞ্চনন্দপুর গ্রামে নিজ বাড়িতে কীটনাশক পান করেন। তাঁকে ভোলাহাট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে দায়িত্বরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

মানববন্ধনে তদন্ত কমিটির সদস্য মো. খলিলুর রহমান ও বেলাল উদ্দিনের বড় ভাই মো. আসগর আলী ঘটনার সতত্যা স্বীকার করে বক্তব্য দেন। মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন, এনজিও মাইডসের মান্নুমোড় শাখার কর্মীগণ, ইউনিয়ন পরিষদ সাবেক সদস্য সাদিকুল ইসলামসহ তার আত্মীয়—স্বজন ও এলাকাবাসি। এ সময় উপস্থিত সকলে বেলাল উদ্দিনকে যারা পরিকল্পিতভাবে কীটনাশক পানে বাধ্য করে মৃত্যু দিকে ঠেলে দিয়েছেন। তাদের গ্রেফতার করে বিচারের মাধ্যমে ফাঁসির দাবি করেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ