ভোলাহাটে বন্যার পানিতে ভেসে গেছে কোটি টাকার মাছ

আপডেট: আগস্ট ৩০, ২০১৭, ১:০৯ পূর্বাহ্ণ

ভোলাহাট প্রতিনিধি


চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাটে বন্যার পানিতে ভেসে গেছে বিভিন্ন জলাশয়ের কোটি টাকার মাছ। ঋণের বোঝা মাথায় নিয়ে হতাশায় দিন কাটছে মাছ চাষিদের। সম্প্রতি উজান থেকে আসা বানের পানিতে বিভিন্ন জলাশয়ের প্রায় কোটি টাকার মাছ ভেসে যাওয়ায় মাছ চাষিরা চরম হতাশায় দিন কাটাচ্ছেন। তারা বিভিন্ন এনজিও সংস্থার কাছ থেকে নেয়া ঋণের টাকা কি ভাবে শোধ করবেন এ নিয়ে চিন্তিত। উপজেলার পঞ্চানন্দপুর গ্রামের মৃত আফজাল হোসেনের শিক্ষিত বেকার ছেলে হুজ্জাতুল কর্মসংস্থান হিসেবে মাছ চাষে মনোযোগি হন। তিনি প্রায় ৭লাখ টাকা বিভিন্ন এনজিও সংস্থাসহ বিভিন্ন জনের কাছ থেকে ঋণ নিয়ে ময়ামারী বড় জোলা লীজ নিয়ে মাছ চাষ শুরু করেন। কিন্তু বন্যার পানিতে সব মাছ ভেসে গিয়ে এখন সর্বশান্ত হয়ে পড়েছেন তিনি। তিনি আরো জানান, পানি নেমে যাওয়ার পর যা মাছ ছিলো তাও আবার মরে গিয়ে ভেসে উঠেছে। একই উপজেলার পোল্লাডাংগা বেলতলা গ্রামের মৃত রবুর ছেলে সরকারি জলাশয় আদাতলা দামুশ লীজ নিয়ে প্রায় ১৫ লাখ টাকা বিনিয়োগ করে মাছ চাষ শুরু করেছিলেন তার মাছও ভেসে যায়। মাছ চাষি বজরাটেক গ্রামের মৃত ফজলু দেওয়ানের ছেলে লাল দেওয়ান জানান, তিনি পোল্লাডাংগা কপরা লীজ নিয়ে মাছ করেছিলেন তারও প্রায় ১০ লাখ টাকার মাছ ভেসে গেছে। বজরাটেক গ্রামের নুর শাহাদার ছেলে সানোয়ার জানান, মহানন্দা নদীর পাশে গোল ঢাবে মাছ চাষ করছিলেন। তার ১৯ লাখ টাকার মাছ ভেসে গেছে জানান তিনি। এছাড়াও অনেক মৎস্য চাষির লাখ লাখ টাকার মাছ বন্যার পানিতে ভেসে যাওয়ায় পথে বসতে হয়েছে মাছ চাষিদের। ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটানো তো দুরের কথা এখন বিভিন্ন এনজিও সংস্থা ও বিভিন্ন জনের কাছ থেকে নেয়া ঋণের টাকা শোধ দেয়া নিয়ে চরম হতাশায় দিন কাটাচ্ছেন তারা। এ ব্যাপারে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা(ভারপ্রাপ্ত) ওয়ালিউর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, উপজেলার প্রায় ৪৯টি পুকুরের প্রায় ১কোটি ১৫ লাখ ৯৯হাজার ৪শ টাকার মাছ ভেসে গেছে। তিনি আরো বলেন, বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হয়েছে।