ভোলাহাটে সেফটি ট্যাঙ্কে নেমে যুবক নিহত

আপডেট: এপ্রিল ৩, ২০১৭, ১২:৩৯ পূর্বাহ্ণ

ভোলাহাট প্রতিনিধি


চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাটে সেফটি ট্যাঙ্কে কাজ করতে নেমে নাজির হোসেন (২৫) নামে একজন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় একজন আহত হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার বীরশ্বরপুর গ্রামের খোরসেদ আলীর ছেলে রহমত আলীর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।
সরজমিন গিয়ে জানা যায়, শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার বীরশ্বরপুর গ্রামের খোরসেদ আলীর ছেলে রহমত আলীর বাড়িতে সেফটি ট্যাঙ্কের ভীতর ঢুঁকে কাজ করছিল একই উপজেলার চরধরমপুর গ্রামের আজিজুল ইসলামের ছেলে নাজির হোসেন। অক্সিজেনের অভাব বুঝতে পেরে বাঁচাও বলে চিৎকার দিলে উপরে থাকা অপর হেডমিস্ত্রি বীরেশ্বরপুর গ্রামের ই¯্রাফিলের ছেলে কাজেম আলী (৩৫) নাজিরের হাত ধরে উঠাবার চেষ্টা করলে তিনিও জ্ঞানহারিয়ে ফেলেন। পরে দুইজনকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে দ্রুত ভোলাহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা. শাকিল নাজিমকে মৃত ঘোষণা করেন এবং কাজেম শঙ্কামুক্ত বলে জানান।
এ ব্যাপারে বাড়ির মালিক রহমত আলীর স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সেফটি ট্যাঙ্কটি নতুনভাবে নির্মাণ করে ভিতরে সাটারিং’র কাঠ থাকায় মিস্ত্রীরা নির্মাণের ১৪-১৫ দিন পর সন্ধ্যার সময় কাঠগুলো খোলার জন্য আসলে বাড়িতে পুরুষ মানুষ না থাকায় মিস্ত্রীদের কাজ করতে নিষেধ করেন। কিন্তু তাদের প্রচুর কাজ আছে বলে তাৎক্ষণিকভাবে কাজে লেগে পড়েন।
এলাকাবাসী জানায়, সেফটি ট্যাঙ্কির দুইটি মুখই বন্ধ থাকায় ভেতরে গ্যাসের সৃষ্টি হয়ে এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ভোলাহাট থানায় কোন মামলা হয় নি বলে জানান থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মহসীন আলী।