ভয় দেখিয়ে অর্থ আদায়, ডিবি’র ৬ সদস্য বরখাস্ত

আপডেট: ফেব্রুয়ারি ১, ২০২০, ১২:৩৫ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


ব্যবসায়ীকে অপহরণের পর ক্রসফায়ারের ভয় দেখিয়ে চার লাখ টাকা মুক্তিপণ আদায়ের অভিযোগ উঠেছে ঢাকা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) ছয় সদস্যের বিরুদ্ধে।
ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় তাদের ইতোমধ্যে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. মারুফ হোসেন সরদার।
শুক্রবার বিকেলে তিনি বলেন, ‘ ওই ছয় জনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত শুরু হয়েছে। তদন্তে আরও নিশ্চিত হয়ে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’
ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীর নাম সোহেল। এসপির কাছে তিনি লিখিত অভিযোগে বলেন, গত বুধবার আনুমানিক সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সদরঘাট থেকে ব্যবহারের জন্য দুটি লুঙ্গি কিনে বাসায় ফিরছিলেন। সুত্রাপুর থানার লালকুঠির নৌকাঘাটে পৌঁছানো মাত্র হঠাৎ পাঁচ-ছয়জন তাকে ঘিরে ফেলে। কেরাণীগঞ্জের ডিবির পরিচয় দিয়ে তাকে হাতকড়া পড়িয়ে নৌকায় তুলে বুড়িগঙ্গা নদীর ওপারে নিয়ে যায়।
সোহেল জানান, কেরানীগঞ্জ আলম মার্কেটের সামনের রাস্তার ওপরে সাদা রঙের মাইক্রোবাসে তুলে কালো রঙের কাপড় দিয়ে তার চোখ বেঁধে ফেলা হয়। এরপর অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে কাটার-প্লাস দিয়ে তার হাতের আঙুল ও নখ জখম করে এবং লাঠি দিয়ে মারধরও করে। পরে আগ্নেয়াস্ত্র মাথায় ঠেকিয়ে মুক্তিপণ হিসেবে সোহেলের কাছে পাঁচ লাখ টাকা দাবি করে। টাকা না দিলে মামলায় ফাঁসিয়ে জেলে পাঠানোর, এমনকি ক্রসফায়ারে ফেলে দেয়ার হুমকিও দেয়া হয়।
এক পর্যায়ে ডিবি সদস্যরা তার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। তখন সোহেলের স্ত্রী-বোনসহ পরিবারের সদস্যরা মুক্তিপণ দিতে রাজি হন। অপহরণকারীদের কথামতো ওই রাতেই টাকা নিয়ে সোহেলের পরিবার মোহাম্মদপুর বেড়িবাঁধে যায়।
রাত সাড়ে ১১টার দিকে ডিবি সদস্যরা বিভিন্ন কাগজে সই নিয়ে সোহেলকে শিখিয়ে দেয়া কথাবার্তা মোবাইলফোনে ভিডিও আকারে ধারণ করে ও বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি দেখায়। পরে তাদের কাছ থেকে ছাড়া পেয়ে সোহেল পুলিশের উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ করেন।
তথ্যসূত্র: রাইজিংবিডি