মঙ্গলের আকাশে রামধনু? তাহলে কি মঙ্গলে সত্যিই রয়েছে জল!

আপডেট: এপ্রিল ৭, ২০২১, ৭:৩৭ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক:


কিছুদিন আগে নাসার পারসেভেব়্যান্স রোভার মঙ্গলের ভূপৃষ্টির কিছু ছবি পাঠিয়েঠিল। সেই ছবি নিয়ে চর্চাও হয়েছিল প্রচুর। কিন্তু এখন চর্চার বিষয় মঙ্গলের মাটি নয়। মঙ্গলের আকাশে ওঠা এক রামধনু। সম্প্রতি একটি ছবি প্রকাশ্যে এসেছে যেখানে মঙ্গলের হলুদ আকাশে দেখা যাচ্ছে সাতরঙা রামধনু।
পারসেভের‌্যান্স থেকেই এই ছবিটি পাঠানো হয়েছে। আর সেই ছবি প্রকাশের পরই হতবাক নেটিজেনরা। কারণ মঙ্গলের আকাশে রামধনুর দেখা পাওয়া নেহাতই অস্বাভাবিক ব্যাপার। অথচ সেটাই ঘটেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়েছে সেই ছবি। তবে নাসা কিন্তু এই ছবির পিছনে কারণ অনুসন্ধান করেছে। সেটি পৃথিবীবাসীর সঙ্গে শেয়ারও করে নিয়েছে তারা। নাসার তরফে জানানো হয়েছে এটি লেন্সের জন্যই সৃষ্টি হয়েছে। লেন্সের উপর আলো পড়লে অনেকসময় তা বিচ্ছুরিত হয়ে রামধনুর সৃষ্টি করে। এক্ষেত্রেও তাই হয়েছে বলে জানিয়েছে নাসা। একটি টুইটে ঘধংধ’ং চবৎংবাবৎধহপব ৎড়াবৎ জানিয়েছে, “অনেকেই জিজ্ঞাসা করেছে মঙ্গলে কি এটা রামধনু? না। রামধনু এখানে সম্ভব নয়। রামধনু গোলাকার জলকণার উপর আলো পড়ে সৃষ্টি হয়। কিন্তু এখানে যথেষ্ট পরিমাণে ঘনীভূত হওয়ার মতো জল নেই। জল তরল অবস্থায় থাকার চেয়ে এখানে অনেক বেশি ঠান্ডা। এই ধনুক লেন্স থেকে তৈরি।”
সম্প্রতি মঙ্গলে একটি সবুজ পাথরের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে যা রীতিমতো অবাক করেছে বিজ্ঞানীদের। নাসার রোভার পারসেভের‌্যান্সই এই সুবুজ পাথরের ছবি পাঠিয়েছে। কীভাবে এই সবুজ পাথর এল বা এটি কীসের তৈরি সে সম্পর্কে এখনও কিছুই জানা যায়নি। কিন্তু এটির মধ্যে থেকে বলা যেতে পারে সবুজ আলো বিচ্ছুরিত হচ্ছে। আলো পড়লে রীতিমতো চমক দিচ্ছে সবুজ পাথর। নাসা পার্সিভারেন্স মার্স রোভার জানিয়েছে, যখন তাঁদের হেলিকপ্টার মঙ্গল পৃষ্ঠতে নামে তারপরেইই এই বিস্ময়কর পাথরটিকে দেখা যায়। রোভারে লাগানো বিভিন্ন ক্যামেরা থেকে নানান দিক থেকে এই পাথরটির ছবি তোলা হয়েছে। নাসা জানিয়েছে, এই মুহূর্তে তাঁদের কাছে এটি সম্পর্কে শুধুই হাইপোথেসিস রয়েছে। যতক্ষণ না রোভারের পরীক্ষা করা হচ্ছে, ততক্ষণ কিছুই বলা যাচ্ছে না।
তথ্যসূত্র: kolkata24x7

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ