মডেল কন্যার মরদেহ নিতে মালদ্বীপ থেকে রাজশাহীতে পরিবারের সদস্যরা

আপডেট: মার্চ ৩১, ২০১৭, ১২:৪২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক



রাজশাহী ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী রাওথার আতিফের মৃত্যুতে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে বিমানে করে মালদ্বীপের রাষ্ট্রদূত আয়েশাথ শান সাকির এবং কমনওয়েলথের সেকেন্ড সেক্রেটারি ইসমাইল মুফি এবং রাওথার বাবা মোহাম্মদ আতিফ, মা আমিনাথ মুহারমিমাথসহ পরিবারের তিন সদস্য রাত ১০টার দিকে রাজশাহীতে পৌঁছান। মালদ্বীপের রাষ্ট্রদূত ও কমনওয়েলথের সেকেন্ড সেক্রেটারি বিকেলে প্রথমে ইসলামী ব্যাংক মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে যান। এসময় তারা কলেজ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেন। পরে সেখান থেকে তারা রাজশাহী সার্কিট হাউজে গিয়ে ওঠেন।
এদিকে রাওথার মৃত্যুতে শোক জানিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার বন্ধ রাখা হয় ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজের সকল ক্লাস ও পরীক্ষা। মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানে তদন্ত কমিটিও করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. আব্দুল মুকিত সরকারকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের এই কমিটিকে তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।
পুলিশ জানিয়েছে, মডেল রাওথার আত্মহত্যার সম্ভাব্য কারণ খুঁজতে তারা কাজ শুরু করেছে। প্রেম বা ব্যক্তিগত কোনো কারণ ছিল কি না তাও ধারণা পাচ্ছে না পুলিশ। নগরীর শাহ মখদুম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. জিল্লুর রহমান বলেন, ‘রাওথার সহপাঠীদের সঙ্গে  কথা বলে জানা গেছে, একদিন পরই তার টিউটেরিয়াল পরীক্ষা ছিল। তাই  পড়াশোনা নিয়ে খুব বেশি চিন্তিত ছিল। তবে কেবল পড়াশোনার চিন্তার কারণে আত্মহত্যা করতে পারে কি না তাও নিয়েও প্রশ্ন রয়েছে। এছাড়া প্রেম বা পারিবারিক কোনো বিষয় আছে কি না তাও জানার চেষ্টা চলছে। তার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা হলেও হয়তো কিছু জানা যাবে।
জানা গেছে, এক সময় প্রখ্যাত ভোগ ম্যাগাজিনের মডেল হয়েছিলেন শখের বসে। শিক্ষার টানে মালদ্বীপ থেকে বাংলাদেশের রাজশাহীতে ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজ এসে ভর্তি হন। তিনি রাজশাহী ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজ এমবিবিএস ১৩তম ব্যাচের দ্বিতীয়বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। বিদেশি কোটায় ভর্তির পর গত বছরের ১৪ জানুয়ারি কলেজের নারী হোস্টেলের দ্বিতীয় তলার ২০৯ নম্বর ওই কক্ষে ওঠেন রাওথা।  এরপর থেকে সেখানেই থাকতেন। হোস্টেলের ওই ব্লকে আরও ছয়জন বিদেশি ছাত্রী থাকেন।
রাওথা আতিফ এক সময় ভোগ ম্যাগাজিনের মডেল হয়েছিলেন। তার মডেলিঙের কিছু ছবি ফেসবুক প্রোফাইলে দেখা যায়। তবে গতকাল বৃহস্পতিবার ব্রাউজ করে দেখা যায় ওই ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। ওয়েস্টার্ন পোশাক ছাড়ার চাপে ছিল ‘নীল নয়না’ মডেল কন্যা রাউথা। গত বছরের ২২ অক্টোবর প্রকাশিত খ্যাতনামা আন্তর্জাতিক ফ্যাশন পত্রিকা ভোগ ইন্ডিয়ার নবম বর্ষপূর্তি সংখ্যার প্রচ্ছদে মডেল হিসেবে তার ছবি ছাপা হয়। ‘নীল নয়না’ হওয়ায় মডেল তারকা হিসেবে আন্তর্জাতিক খ্যাতি পান রাউথা। লাইফস্টাইল ম্যাগাজিন ‘ভোগ’-এর কভারগার্ল হওয়ার সুযোগ পাওয়া নিহত রাউথা আতিফ ছিলেন মালদ্বীপের সেলিব্রিটি মডেল। নিজ দেশের বাইরে ভারতেও তিনি মডেলিং করেছেন। তবে সহপাঠীদের সঙ্গে তার সম্পর্ক খুব একটা সাবলীল ছিল না। র‌্যাম্পে ঝড় তোলা এই মডেল নিজের মতোই থাকতেন। ওয়েস্টার্ন পোশাকেই তিনি ছিলেন অভ্যস্ত হলেও কলেজের ক্লাসে নিয়ম অনুযায়ী ওড়না মাথায় দিতেন। তবে ব্যবহারিক ক্লাসে খোলামেলা পোশাকেই যেতেন। এনিয়ে ক্যাম্পাসে কানাঘুঁষাও ছিল।
ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজের ছাত্রী ও মালদ্বীপের নাগরিক আইশাত নাজা ফাইজ ছাত্রী হোস্টেলে রাওথার পাশের কক্ষেই থাকেন। তিনি বলেন,‘ঘটনার আগে রাত সাড়ে আটটা পর্যন্ত তাদের  নানা বিষয়ে কথা হয়েছিল। রাওথা স্বল্পভাষী হলেও খুবই উদার ও মিষ্টি মনের ছিল। তারা দুজন মিলে হোস্টেলের সামনে আমগাছে দোলনা তৈরি করে বিকেলে তাতে দোল খেতেন। কিন্তু এভাবে আত্মহত্যা করবে তা ভাবিনি।
ইসলামী ব্যাংক মেডিকেল কলেজের শিক্ষক সমিতির সম্পাদক আব্দুল আজিজ রিয়াদ বলেন, মেডিকেল কলেজের ড্রেসকোড মেনে চলতেন রাওথা। এনিয়ে কখনো কোনো চাপাচাপি ছিল না। ক্লাসের বাইরে যে যার মতো পোশাক পরে। এখানো কলেজে কর্তৃপক্ষ কোনো হস্তক্ষেপ করে নি। তিনি আরো জানান, রাওথা আত্মহত্যার বিষয়টি ভাবনার কারণ জয়ে দাঁড়িয়েছে। কেন তিনি আত্মহত্যা করলেন সে বিষয়ে কেউ কিছু জানাতে পারছেন না। তবে কলেজের পক্ষে রিয়াদ বাদি হয়ে থানায় অপমৃত্যুর মামলা করেছেন।
অপরদিকে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) মুখপাত্র ইফতে খায়ের আলম জানান, মালদ্বীপের রাষ্ট্রদূত এবং রাউথার পরিবারের সদস্যরা রাজশাহীতে অবস্থান করছেন। রাত হয়ে যাবার কারণে রাউথার ময়নাতদন্ত সম্ভব হয় নি। আগামিকাল (শুক্রবার) তার পরিবারের সদস্যদের সম্মতি থাকলে ময়নাতদন্তের পর মরদেহ হস্তান্তর করা হবে।
উল্লেখ্য, বুধবার বেলা ১১টার দিকে হোস্টেলের ২০৯ নং কক্ষে রাওদার কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে অন্য ছাত্রীরা দরজা ধাক্কাধাক্কি করেন। এক পর্যায়ে দরজার ছিটকানি খুলে যায়। এসময় তারা সিলিং ফ্যানে ওড়নার সঙ্গে রাওথাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। পরে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হিমঘরে পাঠায়।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ