মন্দির উদ্ধার অসম্ভব! কুতুব মিনার মামলায় দিল্লির আদালতকে জানিয়ে দিল এএসআই

আপডেট: মে ২৪, ২০২২, ২:৩৮ অপরাহ্ণ

কুতুব মিনারে পুজো অনুমতি দেওয়ার অধিকার তাদের নেই, জানাল এএসআই।

সোনার দেশ ডেস্ক :


মুঘল যুগে না কি কুতুব মিনার তৈরি হয়নি! কুতুবুদ্দিন আইবক নন, কুতুব মিনার তৈরি হয়েছিল রাজা বিক্রমাদিত্যের আমলে। সূর্যের গতিপথ পর্যালোচনার জন্য তৈরি হয়েছিল মিনার।

এমনই দাবি করেছিলেন খোদ ভারতীয় পুরাতত্ত¡ সর্বেক্ষণ (আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া বা এএসআই)-এর প্রাক্তন অধিকর্তা ধর্মবীর শর্মা। হিন্দুত্ববাদীরা দাবি তুলেছেন মন্দির পুনরুদ্ধারের।

এই প্রেক্ষিতে আদালতে হলফনামা দিল এএসআই। ভারতীয় পুরাতত্ত¡ সর্বেক্ষণের দাবি, কুতুব মিনারকে আর মন্দিরে রূপান্তর করা সম্ভব নয়।
মঙ্গলবার আদালতে দেওয়া হলফনামায় এএসআই জানিয়েছে, ১৯১৪ সাল থেকে কুতুব মিনারের সংরক্ষণ করা হচ্ছে। এখন আর তার গঠন বদলানো অসম্ভব। তাই সেখানে পুজো দেওয়ার যে দাবি তোলা হচ্ছে, সেটাও করা যাবে না।

ধর্মবীরের দাবির প্রেক্ষিতে কুতুব মিনার নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়। এ-ও শোনা যায়, মিনার চত্বরে খননের নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রক। এ নিয়ে একটি রিপোর্ট তারা এএসআই-এর কাছে তলব করেছিল।

কুতুব মিনারের দক্ষিণে যে মসজিদ রয়েছে, তার থেকে ১৫ মিটার দূরত্বে খনন কাজ শুরু হতে পারে। সেই খনন কাজ চালিয়ে এএসআই রিপোর্ট দেওয়ার কথা কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রককে।

হলফনামায় এএসআই বলে, ‘আমরা সংরক্ষিত জায়গাকে পরিবর্তন করতে পারি না। যে সময়ে কুতুব মিনারকে সংরক্ষণ করা হয়, সে সময় সেখানে কোনও পুজোপাঠ হত না। তাই এখন পুজোর অনুমতিও আমরা দিতে পারি না।’
তথ্যসূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ