মরদেহ সরাতে এক লাখ ব্যাগ সংগ্রহ করছে যুক্তরাষ্ট্র

আপডেট: April 3, 2020, 2:17 pm

সোনার দেশ ডেস্ক:


যুক্তরাষ্ট্রে হু হু করে বাড়ছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। ইতোমধ্যেই দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় আড়াই লাখ মানুষ, মারা গেছেন পাঁচ হাজারেরও বেশি। প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে এই সংখ্যা। খুব শিগগিরই অবস্থা আরও ভয়াবহ হওয়ার আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। এই পরিস্থিতি বিবেচনায় এক লাখ মরদেহ বহন করার জন্য বিশেষ ধরনের ব্যাগ জোগাড় করছে পেন্টাগন।
যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল ইমার্জেন্সি ম্যানেজমেন্ট এজেন্সি (এফইএমএ) যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে জানিয়েছে, দেশটিতে করোনাভাইরাস দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। এর ফলে মৃতের সংখ্যা সামাল দেয়া মুশকিল হতে পারে। বৃহস্পতিবারই দেশটিতে এক হাজারেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। এতে সবচেয়ে বেশি ভুগছে নিউ ইয়র্ক।
জানা গেছে, ইতোমধ্যেই নিউ ইয়র্কের বিভিন্ন হাসপাতাল মরদেহ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে। সেখানকার হাসপাতাল ও মর্গে এই বডি ব্যাগগুলো পাঠানো হবে, যেন সুষ্ঠভাবে মরদেহগুলো বহন এবং শেষকৃত্য করা যায়।
এসব ব্যাগ বিতরণের দায়িত্ব পেয়েছে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। তারা ইতোমধ্যেই এই বিশেষ ব্যাগ প্রস্তুতকারক একটি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। সাধারণত বিদেশে নিহত মার্কিন সেনাদের মরদেহ বহনের জন্য ব্যাগ সরবরাহ করে থাকে ওই প্রতিষ্ঠানটি। তাদের কাছে এবার এক লাখ ব্যাগের চাহিদার কথা জানানো হয়েছে।
জন হপকিন্স ইউনিভার্সিটির তথ্যমতে, যুক্তরাষ্ট্রে এ পর্যন্ত ২ লাখ ৪৫ হাজার ২১৩ জনের শরীরে নভেল করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। মারা গেছেন ৫ হাজার ৯৮৩ জন।
হোয়াইট হাউসের আশঙ্কা, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে আড়াই লাখ মানুষের মৃত্যু হতে পারে। এমনকি সংক্রমণ যদি খুব কম মাত্রায়ও হয়, তারপরও অন্তত এক লাখ প্রাণহানি হতে পারে। দেরিতে হলেও আসন্ন এই বিপর্যয়ের কথা স্বীকার করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেছেন, জনগণ সচেতন না হলে দেশটিতে ২০ লাখ মানুষও মারা যেতে পারেন।
সূত্র: সিএনবিসি, জাগোনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ