মর্গ্যান, স্মিথদের খেলা নিয়ে এখনও বিভ্রান্তি

আপডেট: September 16, 2020, 2:29 pm

সোনার দেশ ডেস্ক


আইপিএলে খেলতে যাওয়া সব ক’টা ফ্র্যাঞ্চাইজিই বিভ্রান্ত। এই বিভ্রান্তির কারণ, এখনও পর্যন্ত আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের কাছ থেকে কোনও নির্দেশিকা আসেনি। ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়ার যে সব ক্রিকেটার এবারের আইপিএলে অংশ নেবেন, তাঁদের নিয়েই যাবতীয় বিভ্রান্তি। এই মুহূর্তে ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা একদিনের আন্তর্জাতিক সিরিজে অংশ েিনত ম্যাঞ্চেস্টারে রয়েছেন। আজ, বুধবার সিরিজের শেষ ম্যাচ খেলে তাঁরা দুবাইয়ের উদ্দেশে রওনা হবেন। কিন্তু দুবাই পৌঁছে কি তাঁরা সরাসরি ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলোর হয়ে মাঠে নামতে পারবেন? নাকি তাঁদের থাকতে হবে আইসোলেশনে?
কোনও কোনও ফ্র্যাঞ্চাইজি বলছে, ইংল্যান্ড–অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা আসছেন একটা ‘বায়ো বাব্ল’ থেকে। তাই তাঁদের প্রথম থেকে খেলতে কোনও অসুবিধে হবে না। কিন্তু দুবাই এবং আবু ধাবির নিয়ম সম্পূর্ণ আলাদা। আবু ধাবিতে ঢুকতে গেলে লাগবে কোয়ারেন্টিন। সেই কোয়ারেন্টিন পর্ব শেষ না হলে আবু ধাবিতে ঢোকা যাবে না। যে কারণে গত সপ্তাহে দুবাই পৌঁছেও বোর্ড সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি এখনও আবু ধাবিতে যেতে পারেননি। তাহলে ইংল্যান্ড–অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা কী করে পারবেন?
আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিল এখনও কোনও সরকারি নির্দেশিকা জারি করতে পারেনি। সেজন্যই ইওয়িন মর্গান, স্টিভ স্মিথদের নিয়ে থেকে গেছে বিভ্রান্তি। কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের সিইও সতীশ মেনন জানিয়েছেন, ‘গোটাটাই ধোঁয়াশায় রেেয়ছ। একেকটা ফ্র‌্যাঞ্চাইজি একেকরকম করে বলছে। আমরা যতক্ষণ না পর্যন্ত আইপিএল থেকে সরকারি নির্দেশ না পাব, ততক্ষণ কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারব না। তেমন হলে কোয়ারেন্টিন পর্ব শেষ হওয়ার পরই আমাদের দলের অস্ট্রেলিয় এবং ইংরেজ ক্রিকেটাররা মাঠে নামবে।’
খোঁজ নিয়ে জানা গেল, বোর্ড কর্তারা এ ব্যাপারে দুবাই এবং আবু ধাবি প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলবেন। তারপরই চূড়ান্ত নির্দেশিকা জারি করা হবে। কথা বলা হবে সংযুক্ত আরব আমিরশাহি ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গেও। যত দিন না পর্যন্ত আইপিএল কর্তৃপক্ষ নির্দেশিকা জারি করবে, ততদিন পর্যন্ত এই বিভ্রান্তি থাকবে বলে মনে করছে ফ্র্যাঞ্চাইজিরা।
তথ্যসূত্র: আজকাল

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ