মসুলের গ্র্যান্ড মসজিদ ‘উড়িয়ে দিয়েছে আইএস’

আপডেট: জুন ২৩, ২০১৭, ১২:৪২ পূর্বাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


তিন বছর আগে যেখানে দাঁড়িয়ে খিলাফতের ঘোষণা দিয়েছিলেন আবু বকর আল বাগদাদি, তার দল ইসলামিক স্টেট মসুল শহরের সেই গ্র্যান্ড আল-নূরি মসজিদই উড়িয়ে দিয়েছে বলে জানিয়েছে ইরাকি বাহিনী।
ইরাকের দক্ষিণাঞ্চলে দ্বাদশ শতকের ওই প্রাচীন মসজিদটি তার দেড়শ ফুট উঁচু হেলানো মিনারের জন্য বিখ্যাত ছিল।
ইরাকি বাহিনীর বরাত দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছে, দেশটির এলিট কাউন্টার টেররিজম সার্ভিসের সদস্যরা মসুলের পুরনো অংশে ওই গ্র্যান্ড মসজিদের ৫০ মিটারের মধ্যে পৌঁছে যাওয়ার পর বুধবার স্থানীয় সময় সকাল ৯টা ৩৫ মিনিটে বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।
ইরাকি বাহিনীর এই অভিযানের কমান্ডার একে আইএসের ‘আরেকটি ঐতিহাসিক অপরাধ’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।
অবশ্য আইএস তাদের মুখপাত্র আমাকে এক বিবৃতিতে দাবি করেছে, মসজিদটি ধ্বংস হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলায়।
আর ইরাকের প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল-আবাদি এই মসজিদ উড়িয়ে দেওয়ার ঘটনাকে ‘আইএস এর পরাজয় স্বীকার করে নেওয়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা’ হিসেবে দেখছেন।
২০১৪ সালে গ্র্যান্ড মসজিদের মেহরাব থেকেই খিলাফতের ঘোষণা দিয়েছিল আইএসের শীর্ষ নেতা আবু বকর আল বাগদাদি
২০১৪ সালে গ্র্যান্ড মসজিদের মেহরাব থেকেই খিলাফতের ঘোষণা দিয়েছিল আইএসের শীর্ষ নেতা আবু বকর আল বাগদাদি
আকাশ থেকে তোলা ছবিতে দেখা গেছে, আল-নূরি মসজিদ ও এর বিখ্যাত মিনার ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্র সেনাবাহিনীর মেজর জেনারেল জোসেফ মার্টিন বলেছেন, ইরাক আর মসুলের একটি গুরুত্বপূর্ণ সম্পদ আইএস ধ্বংস করে দিল। এর আগেও ইরাক ও সিরিয়ার বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ঐতিহাসিক নিদর্শন ধ্বংস করে দিয়েছে আইএস।
এই জঙ্গি দল মসুলের এক লাখ মানুষকে জিম্মি করে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করতে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছে জাতিসংঘ।
তথ্যসূত্র: বিডিনিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ