মহাকাশে স্বয়ংক্রিয় কার্গো বিমান পাঠাল চিন

আপডেট: মে ৩০, ২০২১, ২:২৯ অপরাহ্ণ

সোনার দেশ ডেস্ক


চিনের মুকুটে নয়াপালক।cargo resupply spacecraft লঞ্চ করল চিন। সফলভাবে তিয়ানজু -২ নামে একটি স্বয়ংক্রিয় কার্গো পুনরায় সাপ্লাই বিমান চালু করেছে চিন।আগামী দিনে মহাকাশচারীদের পাঠানোর ক্ষেত্রে স্বয়ংক্রিয় এই কার্গো বিমান সাহায্য করবে বলে দাবি করেছে চিন। অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে তৈরি এই স্বয়ংক্রিয় বিমান মহাকাশ কক্ষপথ মেনেই চলাচল করবে। তিয়ানজু -২ মহাকাশযানটি সাতটি রকেট বহন করতে সক্ষম। দক্ষিণ চিনের ওয়েংচং স্পেস লঞ্চ কেন্দ্র থেকে এটি লঞ্চ করা হয়েছে।
চিন ম্যানডেড স্পেস ইঞ্জিনিয়ারিং অফিসের তরফে জানানো হয়েছে, তিয়ানজু -২ বা চিনের “হ্যাভেনলি ভেসেল” দেশের দক্ষিণ অংশের ওয়েংচং স্পেস লঞ্চ সেন্টার থেকে ৭টি রকেট নিয়ে উড়েছে। তিয়ানজু -২ হল চিনের দ্বিতীয় মিশন। তবে চিনের স্বয়ংক্রিয় মহাকাশযান তৈরির উদ্যোগ এটাই প্রথম। দিন কয়েক আগেই মঙ্গল গ্রহে সফলভাবে নেমেছে চিনের ঝুরং রোভার। লাল গ্রহের বায়ুমণ্ডলের বাধা পেরিয়ে প্যারাস্যুটের মাধ্যমে ইউটোপিয়া প্ল্যানিশিয়া লাভাভূমিতে নেমেছে।
চিনের ঝুরং রোভার মঙ্গল গ্রহ ঘুরে তথ্য সংগ্রহের পাশাপাশি ছবি সংগ্রহ করছে। চিনের এই মিশনের নাম দেওয়া হয়েছিল নিহাও মার্স। এক কথায় মহাকাশ গবেষণায় ইতিহাস সৃষ্টি করেছে চিন। প্রথম মিশনেই সফলভাবে প্রদক্ষিণ, অবতরণ এবং রোভিং করাতে পেরেছে তারা। চিনের পাঠানো ঝুরং এবার মঙ্গলের মাটিতে ঘুরবে। মঙ্গল গ্রহের আনাচ-কানাচ থেকে পাথর সংগ্রহ করবে। মঙ্গল গ্রহ সম্পর্কে অনেক অজানা তথ্য পাবে চিন। চিনের আগে একমাত্র মঙ্গল গ্রহের কক্ষপথে সফলভাবে কোনও বাধা বিপত্তি ছাড়াই পৌঁছতে পেরেছে রাশিয়া এবং আমেরিকা।
তবে শনিবার সফলভাবে তিয়ানজু -২ নামে একটি স্বয়ংক্রিয় কার্গো পুনরায় সাপ্লাই বিমান চালু করে মহাকাশ গবেষণায় সাড়া ফেলে দিয়েছে চিন।আগামী দিনে চিনের মহাকাশচারীদের দারুণভাবে কাজে আসবে স্বয়ংক্রিয় এই কার্গো বিমান। এমনই দাবি চিনের। অত্যাধুনিক প্রযুক্তির এই বিমান পাঠিয়ে বেশ খুশি ওয়েংচং স্পেস লঞ্চ কেন্দ্রের ইনজিনিয়র-সহ বাকি কর্মীরা। দেশের মহাকাশ গবেষণার ক্ষেত্রে এই নয়া উদ্যোগের সাক্ষী থাকতে পেরে তাঁর গর্ব অনুভব করছেন বলে জানিয়েছেন।
তথ্যসূত্র:  kolkata24x7

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ