মহাদেবপুরে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে ৯০টি কমিটি গঠন

আপডেট: এপ্রিল ২০, ২০২১, ৯:২৬ অপরাহ্ণ

মহাদেবপুর প্রতিনিধি:


নওগাঁর মহাদেবপুরে প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে জনস্বচেতনতা বাড়ানো ও আবশ্যিকভাবে মাস্কের ব্যবহার নিশ্চিত করণে ৯০টি কমিটি গঠন করেন উপজেলা প্রশাসন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মো. মিজানুর রহমানের নির্দেশনায় উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে ৯০টি ওয়ার্ডে ৯০টি কমিটি গঠন করেন। প্রতিটি কমিটিতে ৪ জন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও ৪ জন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক রয়েছে। একজন প্রধান শিক্ষককে এই কমিটির সভাপতি নির্বাচিত করা হয়েছে। এ ছাড়াও ৩জন গণ্যমান্য ব্যক্তিকে এই কমিটির সদস্য ও ওই ওয়ার্ডের মেম্বার ও সংরক্ষিত নারী মেম্বারকে এই কমিটির উপদেষ্টা করা হয়েছে। প্রতিটি ইউনিয়নে ৯টি কমিটি মনিটরিং করার জন্য উপজেলার এক একজন অফিসারকে ট্যাগ অফিসার হিসাবে মনিটরিং এর জন্য দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। উপজেলার সকল ট্যাগ অফিসারকে মনিটরিং করছেন উপজেলা কৃষি অফিসার অরুন চন্দ্র রায়। তার রিপোর্টের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্থানীয় সংসদ সদস্য ছলিম উদ্দীন তরফদার সেলিম ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আহসান হাবীব ভোদন এর পরামর্শক্রমে ও নওগাঁর জেলা প্রশাসক হারুন অর রশিদ এর নির্দেশনায় প্রতিটি পদক্ষেপ গ্রহণ করছেন। প্রতিটি ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষের আস্থা বাড়াতে এই কমিটি বিভিন্ন পাড়া, মসজিদ ও মাদ্রাসায় জনস্বচেতনতা তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন। এছাড়াও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের সাথে সমন্বয় করে মাস্কের ব্যবহার নিশ্চিত করতে এই কমিটি জনস্বচেতনতা সৃষ্টিসহ সাধারণ মানুষের মাঝে মাস্ক বিতরণ করছে।
এ বিষয়ে মহাদেবপুর সদর ইউনিয়নের ট্যাগ অফিসার ও উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার ফরিদুল ইসলাম জানান, উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের প্রতিটি ওয়ার্ডে কমিটি গঠনের মাধ্যমে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে শিক্ষকগণসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মিজানুর রহমান জানান, প্রতিটি ওয়ার্ডের সাধারণ মানুষের আস্থাভাজন শিক্ষকদের সম্পৃক্তকরে প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে প্রতিটি পাড়ায় পাড়ায় সরকার নির্দেশিত ১৭টি গাইড লাইন বাস্তবায়নসহ শতভাগ মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করছেন এই কমিটি। এছাড়াও মসজিদ, মাদ্রাসা ও হাট-বাজারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অতিব জরুরী প্রয়োজনে মাস্ক ব্যবহার করে জাতায়াতের জন্য পরামর্শ প্রদান করছেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ