মহাদেবপুরে মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার ভিডিও ধারণ || দুই যুবক গ্রেফতার

আপডেট: সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৭, ১:০৩ পূর্বাহ্ণ

মহাদেবপুর প্রতিনিধি


নওগাঁর মহাদেবপুরে মাদ্রাসার ১০ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে তিন বখাটে যুবকের ধর্ষণ চেষ্টার ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে প্রকাশের ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনসহ পর্নগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মহাদেবপুর থানায় মামলা হয়েছে। এঘটনায় পুলিশ ২ যুবককে গ্রেফতার করেছে। মহাদেবপুর থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত ৯ সেপ্টেম্বর শনিবার এ ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার রাইগাঁ ইউনিয়নের কুন্দনা গ্রামে। এ ঘটনায় তিন বখাটে যুবকের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলায় গতকাল ১০ সেপ্টেম্বর রোববার দুপুরে পুলিশ দুই জনকে গ্রেফতার করেছে। ওই দিন বিকেল  ৪ টার দিকে মাদ্রাসার ১০ শ্রেণির ছাত্রী কুন্দনা জামে মসজিদের গলি দিয়ে স্থানীয় বাজারে যাচ্ছিল। এ সময় একই গ্রামের মো. আলম আলীর ছেলে রকি (১৮) ও একই গ্রামে মামা নুরুল ইসলামের বাড়িতে থাকা বদলগাছী উপজেলার বৈকন্ঠপুর গ্রামের  মো. ইমদাদুল হকের ছেলে সজিব আলী (১৯) তাকে ঝাপটে ধরে পাশের বাঁশঝাড়ে নিয়ে গিয়ে তার জামা কাপড় ছিঁড়ে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে।
এদিকে ধর্ষণ চেষ্টার সময় সঙ্গে থাকা তাদের অপর বন্ধু কুন্দনা গ্রামের মো. জহুরুল ইসলামের ছেলে মিজানুর রহমান (১৮) তার মোবাইল ফোনে ভিডিও চিত্র ধারণ করে। ঘটনার সময় ওই ছাত্রীর আত্মচিৎকারে পার্শ্ববর্তী মসজিদে থাকা এবং আশপাশের লোকজন ছুটে এলে ওই তিন যুবক পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর পিতা বাদি হয়ে মহাদেবপুর থানায় গত ৯ সেপ্টেম্বর রাতে তিন যুবকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনসহ পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় পুলিশ গতকাল অভিযান চালিয়ে ওই তিন অভিযুক্তের মধ্যে রকি ও মিজানুর রহমানকে বদলগাছী উপজেলা এলাকা থেকে গ্রেফতার করে। এ সময় তাদের কাছ থেকে  মোবাইলে ধারণকৃত ওই ভিডিওটি উদ্ধার করে পুলিশ।
এবিষয়ে মহাদেবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় রকি ও মিজানুর নামের দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, পলাতক আসামি সজিবকে গ্রেফতারের জন্য বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চলছে ।