মহিলা পরিষদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

আপডেট: নভেম্বর ৩০, ২০২৩, ৮:৪৩ অপরাহ্ণ


সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:


‘নারী ও কন্যার প্রতি সহিংসতা বন্ধে এগিয়ে আসুন, সহিংসতা প্রতিরোধে বিনিয়োগ করুন: এই শ্লোগানকে সামনে রেখে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ,রাজশাহী জেলা শাখার উদ্যোগে ২৫ নভেম্বর থেকে ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবস -২০২৩ পালন উপলক্ষ্যে বৃহস্পতিবার (৩০নভেম্বর) বিকাল ৩টায় বড়গাছি ইউনিয়ন কমিটিতে নারী ও কন্যার প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ ও প্রতিকার বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে তৃণমূলের নারী ও পুরুষদের সাথে মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা শাখার সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি কল্পনা রায়।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক অঞ্জনা সরকার। তিনি বলেন, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ নারী ও পুরুষের সমতার প্রতিষ্ঠা নারীর মানবাধিকার প্রতিষ্ঠা এবং পরিবার সমাজ ও রাষ্ট্রে নারী ও কন্যার প্রতি সকল ধরনের সহিংসতা মুক্ত মানবিক সাংস্কৃতি গড়ে তোলার যে বৃহৎ লক্ষ্য নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখে প্রতি বছর কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যন্ত কর্মসূচি গ্রহণ করে। তিনি আরো বলেন নারীর প্রতি সংবেদনশীল দৃষ্টিভঙ্গি গড়ে তোলা, জনসচেতনতা তৈরি করা, সরকারের করণীয় বিষয়ে সুপারিশসহ সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও নীতি নির্ধারণী পর্যায়ে অ্যাডভোকেসি করা, গণমাধ্যম , শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সরকারি -বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে সম্পৃক্ত করার মাধ্যমে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ ও নির্মূলে সংগঠন বহুমুখী উদ্যোগ গ্রহণ করে।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ মনে করে যে সম্প্রতি কালে দেশে বিভিন্ন জায়গায় ধর্ষণ গণধর্ষণের মতো ঘটনার বিস্তার ঘটেছে উদ্বেগজনকভাবে , ক্ষমতার ছত্রছায়ায় থেকে অপরাধীরা থেকে যাচ্ছে বিচারের বাইরে। সামনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন এই নির্বাচনকে ঘিরে দেশে তৈরি হচ্ছে অস্থির রাজনৈতিক পরিস্থিতি পূর্বের অভিজ্ঞতায় দেখা গেছে নির্বাচনের পূর্বে নির্বাচনের সময়কালে ও নির্বাচনের পরে নারী ও কন্যাদের প্রতি নানা ধরনের সহিংসতার ঘটনা ঘটে। তাই আমাদেরকে সচেতন হতে হবে, সাবধান থাকতে হবে। অন্যান্যদের মধ্যে আলোচনা করেন বড়গাছি ইউনিয়ন কমিটির সাধারণ সম্পাদক রহিমা বেগম, জেলা শাখার লিগ্যাল এইড সম্পাদক শিখা রায় প্রমুখ।

সভাটি পরিচালনা করেন জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক আলিমা খাতুন। সভা শেষে সভাপতি সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, মহিলা পরিষদ মনে করে গণসচেতনতা বৃদ্ধি বৈষম্যমূলক আইন /নীতি /প্রথা পরিবর্তন সাপেক্ষে সমতাভিত্তিক সমাজ ও ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে সম্মিলিতভাবে সামাজিক আন্দোলন করে তোলা অপরিহার্য। সভায় নারী ও পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ