মাকে হত্যার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলেন ছেলে

আপডেট: মে ৬, ২০১৭, ১২:৫৮ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক


রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে বাঁশ দিয়ে মাকে হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিলেন ছেলে বনি ইসরাইল (৩৫)। গতকাল শুক্রবার দুপুরে রাজশাহীর আমালি আদালত তার জবানবন্দি নেয়। পরে আদালত তাকে জেলহাজতে পাঠিয়ে দেন। এর আগে বোনের দায়ের করা হত্যা মামলায় বনি ইসরাইলকে আদালতে হাজির করে গোদাগাড়ী মডেল থানা পুলিশ।
বৃহস্পতিবার রাত পৌনে নয়টার দিকে উপজেলার ফরিদপুর এলাকার নিজ বাড়িতে ছেলের হাতে খুন হন সেরিনা বেগম (৫৫)। ছেলে বনি ইসরাইল তার মাথায় বাঁশ দিয়ে আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই মারা যান ওই নারী। এসময় তাকে রক্ষায় গিয়ে মারাত্মকভাবে আহত হন সেরিনার স্বামী মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান (৬৫)। রাতেই তাকে উপজেলা হাসপাতালে নেয়া হয়। বর্তমানে সেখানে তিনি চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
রাতেই পুলিশ বাড়ি থেকে আটক করে ছেলে বনি ইসরাইলকে। জব্দ করা হয় মাকে হত্যায় ব্যবহৃত বাঁশ। পরে থানায় বনি ইসরাইলের বিরুদ্ধে হত্যামামলা দায়ের করেন সেরিনা বেগমের মেয়ে আকলিমা খাতুন। ওই মামলায় ঘাতক ছেলেকে গতকাল আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।
বিষয়টি নিশ্চিত করে গোদাগাড়ী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হিপজুর আলম মুন্সি বলেন, গ্রেফতারকৃত বনি ইসরাইলকে আদালতে নেয়া হয়। এসময় আদালতে মাকে হত্যার স্বীকারক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। আদালত তা ১৬৪ ধারায় তা রেকর্ড করেন। পরে আদালত তাকে জেলহাজতে পাঠিয়ে দেন।
নিহতের পরিবারের বরাত দিয়ে ওসি বলেন, ছেলে বনি ইসরাইল প্রায়ই মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলতেন। এর আগে একবার বোনদের ঘরের ভেতর আটকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা চালান।
গত বৃহস্পতিবার রাতে মায়ের মাথায় বাঁশ দিয়ে আঘাত করেন বনি ইসরাইল। এর ফলে ঘটনাস্থলেই মারা যান তার মা সেরিনা বেগম। স্ত্রীকে রক্ষায় গিয়ে ছেলের হামলায় মারাত্মকভাবে আহত হন বনি ইসরাইলের বাবা হাবিবুর রহমান।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ